বিপিএলের টিকিট সংকটে সিলেটের দর্শক

স্পোর্টস মেইল২৪ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:৩৭ এএম, ০৩ নভেম্বর ২০১৭
বিপিএলের টিকিট সংকটে সিলেটের দর্শক

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের পঞ্চম আসর শুরু হবে ৪ নভেম্বর (শনিবার)। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে এ আসরের প্রথম পর্বের ৮টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে। উদ্বোধনী খেলায় ঢাকা ডায়ানামাইট এর মুখোমুখি হবে স্বাগতিক সিলেট সিক্সার্স।

দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর সিলেটবাসী এতবড় আসরের স্বাদ পেতে যাচ্ছে। কিন্তু টিকিট যেন সোনার হরিণ। গভীর রাত থেকে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে সকালে টিকিট নিয়ে ফিরছেন অনেকে। আবার অনেকে টিকিট না পেয়ে ফিরে গেছেন খালি হাতে। এদের সংখ্যা কয়েক হাজার।

আয়োজকরা জানিয়েছেন, সিলেটে ক্রীড়াপ্রেমী দর্শকদের সংখ্যা অনেক, কিন্তু চাহিদার তুলনায় স্টেডিয়ামে দর্শক ধারণ ক্ষমতা কম। যদিও দর্শক ধারণ ক্ষমতার দিক থেকে সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের অবস্থান দেশের মধ্যে দ্বিতীয়। এখানে রয়েছে ১৮ হাজার দর্শক ধারণ ক্ষমতা।

গত ৩১ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া টিকিট বিক্রির প্রথম দিন থেকেই দর্শকদের টিকিট সংগ্রহের আগ্রহ লক্ষ্যণীয় ছিল। টিকিট না পেয়ে অনেকে বিশৃংখলার চেষ্টাও করেছেন। তবে, আইনশৃংখলা বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তার কারণে অনেকটা শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে চারদিনের আট ম্যাচের টিকিট বিক্রি। কিছুটা বিক্রি হয়েছে অনলাইনে।

টিকিট চাহিদার ব্যাপারে দর্শকরা অভিযোগ করছেন, অনেকে রাস্তা থেকে মহিলাদের ধরে নিয়ে লাইনে দাঁড় করিয়েছে, কেউ বা কাজের লোক নিয়ে এসেছে এবং এভাবে একজন একাধিক টিকিট নিয়ে গেছে।

তবে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) আব্দুল ওয়াহাব জানিয়েছেন, সকল নাগরিকের খেলা দেখার অধিকার রয়েছে। এখানে কে কার পক্ষে টিকিট সংগ্রহ করেছে সেটা বলার অবকাশ নেই। জাতীয় পরিচয়পত্র দেখে টিকিট প্রদান করেছেন বিক্রয়কর্মীরা।

১৮ হাজার দর্শকদের জন্য টিকিটের দুই-তৃতীয়াংশ দেয়া হয়েছে সিলেটের দর্শকদের জন্য। এর মধ্যে কিছু টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে অনলাইনের মাধ্যমে। জেলা স্টেডিয়ামের বুথে বিক্রি করা হয়েছে প্রায় ৭ থেকে ৮ হাজার টিকিট।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল বলেছেন, খেলার প্রতি সিলেটের মানুষের আগ্রহ অনেক বেশি। সিলেটে এতবড় একটি আসর হচ্ছে দর্শকদের চাহিদা বেশি হবে এটা স্বাভাবিক। কয়েক লাখ দর্শককে ১৮ হাজার ধারণ ক্ষমতার স্টেডিয়ামে জায়গা দেয়া সম্ভব হবে না।

তিনি সিলেটের ক্রীড়ামুদি দর্শকদের উদ্দেশ্যে বলেন, হতাশ হওয়ার কিছু নেই। বিপিএল সিলেটে শেষবারের কোন বড় ক্রিকেট আসর নয়। মাত্র শুরু হল। আগামী দিনে আন্তর্জাতিক অনেক খেলা হবে। আপনারা সেসব খেলা মাঠে বসে উপভোগ করতে পারবেন।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

সৌম্যের টি-টুয়েন্টিতে অগ্রগতি

সৌম্যের টি-টুয়েন্টিতে অগ্রগতি

বিসিবির নির্বাচনে দুর্জয়-আশফাকুলের জয়

বিসিবির নির্বাচনে দুর্জয়-আশফাকুলের জয়