জ্বলে ওঠা সৌম্যর ব্যাটে খুলনার জয়

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ১০:৪০ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৯
জ্বলে ওঠা সৌম্যর ব্যাটে খুলনার জয়

জয়ের হাতছানি রেখেই ২১তম জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) দ্বিতীয় রাউন্ডে প্রথম স্তরের ম্যাচে তৃতীয় দিন শেষ করেছিল খুলনা বিভাগ। চতুর্থ দিনে রোববার অফফর্মে থাকা সৌম্য সরকারের অপরাজিত হাফসেঞ্চুরিতে জয় নিশ্চিত করলো খুলনা।

রাজশাহী বিভাগের বিপক্ষে ৭ উইকেটের জয় পেয়েছে খুলনা বিভাগ। তৃতীয় শেষে দিন ৯ উইকেট হাতে নিয়ে জয় থেকে ১০৮ রান পিছিয়ে ছিল খুলনা।

খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী বিভাগকে হারানোর জন্য স্বাগতিকদের সামনে লক্ষ্য দাঁড়িয়েছিল মাত্র ১২৩ রানের। ছোট লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ব্যর্থ হন দলের দুই টপঅর্ডার এনামুল হক বিজয় (৪) ও ইমরুল কায়েস (২২)।

দুই ওপেনার ব্যর্থ হলেও একপ্রান্ত আগলে রাখেন সৌম্য সরকার। মোহাম্মদ মিঠুনের সঙ্গে তৃতীয় উইকেটে গড়েন ৬৬ রানের জুটি। মিঠুন ২৭ রান করে ফিরে গেলেও নিজের সহজাত ব্যাটিংয়ে মাত্র ৫৯ বলে ৫০ রান করে অপরাজিত থাকেন সৌম্য। তার ব্যাট থেকে আসে ৩টি করে চার ও ছয়ের মার।

সৌম্য সরকারের অপরাজিত ৫০ ও মেহেদী হাসান মিরাজের ৮ বলে ১৪ রানের ইনিংসে ভর করে ৭ উইকেটের সহজ জয় তুলে নেয় খুলনা বিভাগ।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ২৬১ রান করে রাজশাহী। জবাবে দ্বিতীয় দিন শেষে ৬ উইকেটে ২২৭ রান করে খুলনা বিভাগ। ফলে ৪ উইকেট হাতে নিয়ে ৩৪ রানে পিছিয়ে ছিল খুলনা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯৩ রান করেন ইমরুল কায়েস। উইকেটরক্ষক নুরুল হাসান ৩৫ ও অধিনায়ক আব্দুর রাজ্জাক ৭ রান নিয়ে অপরাজিত ছিলেন।

তৃতীয় দিন ১৬তম বলেই আউট হয়ে যান রাজ্জাক (১২)। তবে এক প্রান্ত আগলে দলের স্কোর বড় করেছেন নুরুল। ওয়ানডে স্টাইলে খেলার চেষ্টা করেছেন তিনি। লোয়ার-অর্ডার ব্যাটসম্যানদের সহায়তায় সেঞ্চুরির স্বপ্ন দেখছিলেন নুরুল। কিন্তু ১০৯তম ওভারের তৃতীয় বলে খুলনার শেষ ব্যাটসম্যান আল-আমিন আউট হয়ে গেলে সেঞ্চুরি বঞ্চিত হন নুরুল। ১০টি চার ও ৪টি ছক্কায় ১২৭ বলে অপরাজিত ৯৭ রান করেন নুরুল। শেষ পর্যন্ত ৩০৯ রানে অলআউট হলে প্রথম ইনিংস থেকে ৪৮ লিড পায় খুলনা।

পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করে বিপর্যয়ে পড়ে রাজশাহী। ব্যাট হাতে নেমেই ২৮ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলে তারা। প্রথম তিন উইকেটের দু’টিই নিয়েছেন আল-আমিন হোসেন। জুনায়েদ সিদ্দিকী ৫ ও অধিনায়ক ফরহাদ হোসেন ১১ রান করে আল-আমিনের বলে আউট হন। আরেক ওপেনার মিজানুর রহমানকে খালি হাতে ফেরান বাঁ-হাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমান।

এরপর দলের হাল ধরেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুশফিকুর রহিম। চতুর্থ উইকেটে ৮৪ রানের জুটি গড়েন তারা। এর মধ্যে হাফ-সেঞ্চুরি করেন শান্ত। তবে অর্ধশতকের আগে ৪৪ রানে থেমে যান মুশফিক। অর্ধশতকের পর থামেন শান্তও। করেন ৫৭ রান। দু’জনকেই শিকার করেন রাজ্জাক।

তাদের বিদায়ের পর রাজশাহীর পরের দিকের ব্যাটসম্যানদের বড় ইনিংস খেলতে দেননি খুলনার বোলাররা। ১৭০ রানেই গুটিয়ে যায় রাজশাহী। ফলে জয়ের জন্য ১২৩ রানের টার্গেট পায় খুলনা। খুলনার পক্ষে আল-আমিন-রাজ্জাক ৪টি করে ও মোস্তাফিজ ২টি উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
রাজশাহী বিভাগ : ২৬১ ও ১৭০
খুলনা বিভাগ : ৩০৯ ও ১২৩/৩
ম্যান অব দ্য ম্যাচ : নুরুল হাসান (খুলনা বিভাগ)।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

সাইফের ডাবল-সেঞ্চুরি, ঢাকার রান পাহাড়

সাইফের ডাবল-সেঞ্চুরি, ঢাকার রান পাহাড়

ভারত সফরে টি-২০ দলে নেই সাব্বির-রুবেল, ফিরলেন সানি-আল আমিন

ভারত সফরে টি-২০ দলে নেই সাব্বির-রুবেল, ফিরলেন সানি-আল আমিন

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফট ১২ নভেম্বর

বঙ্গবন্ধু বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফট ১২ নভেম্বর

প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ক্রিকেটে ফিরতে চান তাসকিন

প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ক্রিকেটে ফিরতে চান তাসকিন