সুয়ারেজের জোড়া গোলে ইন্টারের বিপক্ষে বার্সেলোনার জয়

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ০৪:২৮ এএম, ০৩ অক্টোবর ২০১৯
সুয়ারেজের জোড়া গোলে ইন্টারের বিপক্ষে বার্সেলোনার জয়

লুইস সুয়ারেজের দুই গোল ও লিওনেল মেসির ফিরে আসার অনুপ্রেরণায় ইন্টার মিলানের বিপক্ষে পিছিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ ‘এফ’-এ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে জয় তুলে নিয়েছে বার্সেলোনা।

ক্যাম্প ন্যু’তে বুধবার লটারো মার্টিনেজের গোলে ম্যাচ শুরুর মাত্র দুই মিনিটের মধ্যেই এগিয়ে গিয়েছিল ইন্টার মিলান। কিন্তু বিরতির পর এন্টোনিও কন্টের দলের দুর্দান্ত রক্ষনভাগকে উপেক্ষা করে বার্সেলোনা দুই গোল করে জয় নিশ্চিত করে। ৫৮ মিনিটে ইতালিয়ান শক্ত রক্ষানবুহ্য ভেঙ্গে দুর্দান্ত ভলিতে প্রথম গোল করে সমতা ফেরান সুয়ারেজ। এরপর ৮৪ মিনিটে মেসির আলতো পাসে দলের জয় নিশ্চিত করেন উরুগুয়ের এ তারকা।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ঘরের বাইরে বার্সেলোনাকে কখনই পরাজিত করতে পারেনি ইন্টার। কিন্তু ম্যাচের দীর্ঘ সময় ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ অনেকটাই নিজেদের দখলে রেখেছিল সফরকারীরা। বিশেষ করে প্রথমার্ধের প্রায় পুরোটাই তারা দাপট দেখিয়েছে। এ সময় গোলের ব্যবধান আরও বাড়তে পারত।

তবে ইনজুরি কাটিয়ে মেসির ফেরার এ ম্যাচটিতে বার্সেলোনাও ছিল দারুণ উজ্জীবিত। দীর্ঘদিন পর মেসিকে পাশে পেয়ে সুয়ারেজও যেন বাড়তি একটি আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছিলেন।

রোববার সিরি-এ লিগে ঘরের মাঠে জুভেন্টাসকে আতিথ্য দেবে ইন্টার। এ পর্যন্ত লিগের ছয়টি ম্যাচের প্রতিটিতেই জয়ী হয়ে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে রয়েছে কন্টের দল। আর এ পারফরমেন্সই তাদেরকে ইউরোপেও বহুদূর নিয়ে যাবে বলেই সকলের বিশ্বাস।

ডিসেম্বরে সান সিরোতে ফিরতি লেগে বার্সেলোনাকে অবশ্যই সতর্ক থাকতে হতে। হতে পারে এ ম্যাচের ওপরই গ্রুপের শীর্ষ দলের ভাগ্য নির্ধারিত হবে। ম্যাচ শেষে সুয়ারেজ বলেছেন, ‘এই তিনটি পয়েন্ট খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। অনেক সময় দলকে গোল দিয়ে বা এসিস্ট করে সাহায্য করার সুযোগ আসে। তবে কখনো কখনো তা কাজে আসে না। তবে আমি সবসময়ই কঠোর পরিশ্রম করি। কঠিন মুহূর্তে কখনই ভেঙে পড়ি না।’

কন্টে বলেছেন, ‘পরাজয়টা আমাদের তিক্ত স্বাদ দিয়েছে। ফলাফলটা মোটেই প্রত্যাশিত ছিল না। তবে বার্সেলোনাকে অভিনন্দন। সুয়ারেজ ও মেসিকে পেয়ে তাদের দলের চেহারাই পাল্টে গেছে।’

মৌসুমের শুরুটা ভালো না হলেও লা লিগায় পরপর দুই ম্যাচে জয়ী হয়ে ও মেসিকে দলে পেয়ে আর্নেস্টো ভালভার্দের দল কাল জয়ের মানসিকতা নিয়েই মাঠে নেমেছিল। মৌসুমে এ নিয়ে মাত্র দ্বিতীয় ম্যাচে মেসি মূল একাদশে খেলতে নেমেছিলেন। তবে উরুর ইনজুরির কারণে ইন্টারে ছিলেন না বেলজিয়ান তারকা রোমেলু লুকাকু।

কাউন্টার অ্যাটাকে ম্যাচের প্রথমার্ধটা ছিল দারুণ আকর্ষণীয়। বলের ৬৭ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ বার্সার পক্ষে থাকলেও ইন্টারই বেশি সুযোগ সৃষ্টি করেছিল। মাত্র ১২২ সেকেন্ডে জেরার্ড পিকের ভুল পজিশনে মার্টিনেজ ইনন্টারকে এগিয়ে দেন। এরপর আধা ঘণ্টা পর্যন্ত বার্সেলোনা ভালোই খেলেছে। দুই দিক থেকে বেশ কয়েকটি আক্রমণ করে ইন্টারের রক্ষণভাগকে ব্যস্ত করে তুলেছিল সুয়ারেজ-মেসিরা।

তবে বিরতির আগে দিয়ে ইন্টার বেশ কয়েকটি আক্রমণ চালায়। এর মধ্যে এন্টোনিও কানড্রেভার গোল অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে যায়। নিকোলো বারেলার শট শেষ মুহূর্তে ক্লিয়ার করেন নেলসন সেমেডো। মার্টিনেজ ও এ্যালেক্সিস সানচেজকে রুখে দেন মার্ক-আন্দ্রে টার স্টেগান।

বিরতির পরপরই সার্জিও বাসকুয়েটের স্থলাভিষিক্ত হয়ে আরটুরো ভিডাল ম্যাচের চেহারা পাল্টে দেন। ভিডালের সহযোগিতায় ৫৮ মিনিটে সমতা ফেরান সুয়ারেজ। এরপর ৮৪ মিনিটে ডানদিক থেকে মেসির পাসে সুয়ারেজ দলকে এগিয়ে দেবার পাশাপাশি জয়ও নিশ্চিত করেন।

এ গ্রুপের অপর ম্যাচে চেক চ্যাম্পিয়ন স্লাভিয়া প্রাগকে ২-০ গোলে পরাজিত করে দুই ম্যাচে বার্সেলোনার সাথে সমান ৪ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষস্থানে ওঠে এসেছে বরুসিয়া ডর্টমুন্ড।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

রোনালদো-হিগুয়েইনের গোলে জুভেন্টাসের সহজ জয়

রোনালদো-হিগুয়েইনের গোলে জুভেন্টাসের সহজ জয়

মিডিয়া কাপ ফুটবলে তিন নারী রেফারি

মিডিয়া কাপ ফুটবলে তিন নারী রেফারি

এমবাপের বাড়ানো বলে নেইমারের গোল

এমবাপের বাড়ানো বলে নেইমারের গোল

উত্তাপ ছড়িয়েও গোল শূন্য ড্র অ্যাথলেটিকো ও রিয়াল মাদ্রিদের

উত্তাপ ছড়িয়েও গোল শূন্য ড্র অ্যাথলেটিকো ও রিয়াল মাদ্রিদের