বিসিবি চাইলে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেবেন মাশরাফি

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ১০:৫৮ এএম, ১৩ জানুয়ারি ২০২০
বিসিবি চাইলে অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেবেন মাশরাফি

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) চাইলে জাতীয় ওয়ানডে দলের অধিনায়কত্ব ছেড়ে দেবেন মাশরাফি বিন মর্তুজা। সোমবার বঙ্গবন্ধু বিপিএলের এলিমিনেটর ম্যাচ শেষে এমনটাই বললেন ম্যাশ।

মাশরাফির দল ঢাকা প্লাটুন এলিমিনেটর ম্যাচে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের কাছে ৭ উইকেটে হেরে গেছে। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে দলের পারফরমেন্স, বিসিবির বোর্ড মিটিং ও তার ভবিষ্যৎ নিয়ে কথা বলেন মাশরাফি।

জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব নিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘আমার কাছে তো মনে হয় না যে, জাতীয় দলে আগে অধিনায়ক বাছাই হবে, এরপর দল গঠন করা হবে। আমি তো আগের দিন ক্লিয়ার ম্যাসেজ দিয়েই দিয়েছি যে নির্বাচকরা যা ভাববেন, তাই হবে। বাংলাদেশে তো সবই হয়। নির্বাচকরা যা ভাববে তাই করবে। বিসিবি চাইলে অধিনায়কত্ব এখনই ছেড়ে দেব, কোন সমস্যা নেই।’

অবসর, দলে সুযোগ পাওয়া না পাওয়া, কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ- বর্তমানে এসব ঘুরপাক খাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে সফল ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফির চারপাশে। ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসে ওয়ানডে বিশ্বকাপ থেকে শুরু হয়েছে অবসর নিয়ে শোরগোল।

বিশ্বকাপের পর শ্রীলঙ্কা সফরের দলে সুযোগ পান মাশরাফি। তবে শেষ মুহূর্তে ইনজুরির কারণে দলের সাথে শ্রীলঙ্কায় যাননি তিনি। সম্প্রতি অবসরের চিন্তা থেকে সড়ে আসেন মাশরাফি। তবে তাকে দলে নেওয়া হবে কি-না সেটিই এখন প্রশ্ন। সম্প্রতি তিনি জানিয়েছেন, ‘বিশ্বকাপের ৮ ম্যাচে ১ উইকেট নেওয়ার পর দলে সুযোগ পাওয়ার চিন্তা করি না। এটা নির্বাচকরা ভালো বলতে পারবেন।’

এদিকে বঙ্গবন্ধু বিপিএল দিয়ে দীর্ঘদিন পর আবারও ২২ গজে ফেরেন মাশরাফি। ১৩ ইনিংসে ৪৩ ওভারে ৩২৮ রান দিয়ে ৮ উইকেট নিয়েছেন। নিজেকে মেলে ধরার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করেছেন ম্যাশ। তবে এবারের আসরে তার দল ঢাকা চতুর্থস্থান নিয়ে শেষ করলো।

পুরো আসরে দলের মিডল-অর্ডার নিয়ে সমস্যায় ভুগেছেন বলে জানান ম্যাশ। বলেন, ‘আমি সেরা অধিনায়ক কীভাবে! সাকসেসফুলতো আর আপনি সব সময় হবেন না। আর দ্বিতীয় কথা হচ্ছে যে, আমাদের মিডল অর্ডার, আমরা পুরো আসরে স্ট্রাগল করেছি। তেমন অভিজ্ঞতা নেই আমাদের মিডল অর্ডারে। আপনি হয়তো বলতে পারেন মুমিনুল, বিজয় আছে। বিজয় হয়তো ইন অ্যান্ড আউট ছিল। মুমিনুল শেষ দিকে খুব ভালো খেলছিল।’

‘কিন্তুই অন্যদিক থেকে আমরা সাপোর্টটা পাইনি। টি-টোয়েন্টি তো স্কোরবোর্ডে রান থাকতেই হয় সবসময়। এটা তো ব্যাটিং গেম। আমাদের এখানে তো প্রথমে যারা ব্যাটিং করে তারা নরমালি একটা চাপে থাকেই। উইকেট আরও আস্তে আস্তে ভালো হয়। ওভারঅল যদি বলেন, আসরের শেষ দুই ম্যাচে আমরা পিছিয়ে গেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘খুলনার ম্যাচের আগে আমরা বেশ ভালো অবস্থানে ছিলাম। আমাদের বিদেশি যারা ইনফর্ম ছিল ওরাও চলে গেছে। আবার নতুন করে আনা। খুব কম সময়ের মধ্যে মানিয়ে নেওয়া খুব কঠিন ছিল। শেষ দুই ম্যাচে আমরা টিম হিসেবে খেলতে পারিনি।’


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে ঢাকা প্লাটুনের বিদায়

বঙ্গবন্ধু বিপিএলে ঢাকা প্লাটুনের বিদায়

মাশরাফির বাঁ-হাতে ১৪ সেলাই

মাশরাফির বাঁ-হাতে ১৪ সেলাই

কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকতে না চেয়ে মাশরাফির অনুরোধ

কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকতে না চেয়ে মাশরাফির অনুরোধ

পাকিস্তান সফরে ‌‘যেতেন’ মাশরাফি

পাকিস্তান সফরে ‌‘যেতেন’ মাশরাফি