ট্রিপল সেঞ্চুরি সবসময় স্পেশাল হয়ে থাকবে : তামিম

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ০৮:৪২ পিএম, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২০
ট্রিপল সেঞ্চুরি সবসময় স্পেশাল হয়ে থাকবে : তামিম

ছবি : বিসিবি

দীর্ঘ অপেক্ষা, ধৈর্য্য, আবেগ ও ক্ষুধার্ত থাকায় অপরাজিত ৩৩৪ রানের ইনিংসটি সব সময়ই স্পেশাল হয়ে থাকবে বলে জানিয়েছেন ড্যাশিং ওপেনার তামিম ইকবাল।

রকিবুল হাসানের পর দেশের দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ট্রিপল সেঞ্চুরি করেছেন তামিম ইকবাল। চলমান বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) ৩৩৪ রানের ইনিংস খেলে দেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের রেকর্ডও গড়েছেন তিনি। ৫৮৫ মিনিট ক্রিজে থেকে ৪২৬ বল মোকাবেলা করে ৪২টি চার ও ৩টি ছক্কা মারেন তামিম।

তৃতীয় দিনের খেলা শেষে তামিম বলেন, ‘২০০৭ সালে রকিবুল যখন ট্রিপল সেঞ্চুরি করলো, আমরা অনেকবারই বলেছি- কত ধৈর্য নিয়ে ৩০০ করে সে। আমাদের জাতীয় দলেও কথা বলার টপিক ছিল যে, কিভাবে এতো ধৈর্য দেখালো সে। এতোক্ষণ কিভাবে সে ক্রিজে থাকলো। যেকোন উইকেট, যেকোন বোলিং অ্যাটাকের বিপক্ষে ৩০০ রান করা মোটেও সহজ নয়।’

তামিম বলেন, ‘এটি অবশ্যই স্পেশাল। এটি সর্বদা আমার হৃদয়ের একটি বিশেষ জায়গায় থাকবে। সত্যি কথা বলতে আমি কখনো চিন্তা করিনি যে, আমি ট্রিপল সেঞ্চুরি করব। স্বাভাবিকভাবে আমাদের উইকেট অনেক ধীর গতির ও স্পিনিং। এই উইকেটে ট্রিপল সেঞ্চুরি করা মোটেও সহজ কাজ নয়।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে আসন্ন রাওয়ালপিন্ডি টেস্টেও এমন ব্যাটিং নৈপুণ্যের বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী তামিম। টেস্ট ম্যাচেও এমন ব্যাটিং অব্যাহত রাখতে চান তিনি।
sportsmail24
তামিম বলেন, ‘এটি দারুণ অনুভূতি, কারণ প্রত্যক ব্যাটসম্যানেরই ট্রিপল সেঞ্চুরি করার স্বপ্ন থাকে। তবে আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ, আমি কিভাবে ব্যাটিং করছি। আমি কত রান করেছি, তাও বিবেচ্য নয়। আনন্দের বিষয়টি হলো, আমি কিভাবে ব্যাটিং করেছি। আমি এই ফর্মটি ধরে রাখতে পারলে আমি খুশি হবো। পুরো ইনিংস জুড়েই প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ছিলাম। উইকেট ভালো ছিল। এটি কোনরকম খারাপ আচরণ করেনি। আমি শুধুমাত্র আমার শট খেলেছি।’

বিসিএলের প্রথম রাউন্ডের দ্বিতীয় দিন শেষে সেন্ট্রাল জোনের বিপক্ষে ২২২ রানে অপরাজিত ছিলেন ইস্ট জোনের তামিম। তবে ট্রিপল সেঞ্চুরি নিয়ে তখন কিছু ভাবেননি তিনি। বলেন, ‘সত্যি করে বলতে, আমি যখন ২৬০ বা ২৭০ রানে ছিলাম তখনও ট্রিপল সেঞ্চুরি নিয়ে ভাবিনি। যখন আমি ২৮০ রান অতিক্রম করলাম, তখনই ট্রিপল সেঞ্চুরির বিষয়টি মাথায় আসে। আমি কোন ঝুঁকি নিইনি। আমি ছক্কার মারার চেষ্টা করিনি, আমরা লক্ষ্য ছিল বাউন্ডারি। যখন উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য উপযোগী নয় তখন আমি চেষ্টা করেছি, সিঙ্গেল ও ডাবল নিতে। এটিই মূল রহস্য।’

রকিবুলকে সরিয়ে দেশের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এখন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তামিম। এতে হতাশ হননি রকিবুল। একই ম্যাচে তামিমের প্রতিপক্ষ দলে খেলা রকিবুল বলেন, ‘ব্যাটসম্যান হিসেবে নিজের স্ট্যান্ডার্ড বজায় রেখেছেন তামিম। সে এই রেকর্ডের প্রাপ্য। এমন দুর্দান্ত ইনিংসের জন্য আমি তাকে অভিনন্দন জানাই।’


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

ট্রিপল সেঞ্চুরি হাঁকালেন তামিম ইকবাল

ট্রিপল সেঞ্চুরি হাঁকালেন তামিম ইকবাল

বোলিং দক্ষতায় আরও উন্নতি দরকার মোস্তাফিজের

বোলিং দক্ষতায় আরও উন্নতি দরকার মোস্তাফিজের

মমিনুলের ২১তম সেঞ্চুরি

মমিনুলের ২১তম সেঞ্চুরি

ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেললেন তামিম ইকবাল

ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেললেন তামিম ইকবাল