বিশ্বকাপের পথে ধরা খেল আফগানিস্তান

স্পোর্টস মেইল২৪ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:৩৫ পিএম, ০৫ মার্চ ২০১৮
বিশ্বকাপের পথে ধরা খেল আফগানিস্তান

বিশ্বকাপ বাছাই-পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে গেছে আফগানিস্তান। ডান-হাতি ব্যাটসম্যান কালাম ম্যাকলিয়ডের অপরাজিত ১৫৬ রানের সুবাদে জিম্বাবুয়েতে শুরু হওয়া ২০১৯ ওয়ানডে ক্রিকেট বিশ্বকাপ বাছাই-পর্বের উদ্বোধণী দিন আফগানিস্তানকে ৭ উইকেটে হারালো স্কটল্যান্ড।

বুলাওয়ের অ্যাথলেটিক ক্লাবে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে আফগানিস্তান। শুরুটা ভালো হয়নি তাদের। ৭১ রানের মধ্যে ৪ উইকেট হারিয়ে বসে আফগানরা। তবে পঞ্চম উইকেটে ১৪৯ রানের জুটি গড়ে দলকে খেলায় ফেরান সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ নবী ও নাজিবুল্লাহ জাদরান। দু’জনই হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নেন।

জাদরান ৬৭ রানে থামলেও সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়েছিলেন নবী। কিন্তু নাভার্স নাইন্টিতে থেমে যান তিনি। ৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৮২ বলে ৯২ রান করেন নবী। এই দুই ব্যাটসম্যানের ব্যাটিং দৃঢ়তার পরও ২ বল হাতে রেখে ২৫৫ রানে গুটিয়ে যায় আফগানিস্তান। স্কটল্যান্ডের ব্র্যাড হুইল ও রিচি বেরিংটন ৩টি করে উইকেট নেন।

২৫৬ রানের জবাবে শুরুতেই বিপদে পড়ে যায় স্কটল্যান্ড। ২১ রানের মধ্যে দুই ওপেনারকে হারায় তারা। শুরুর ধাক্কা আমলে না নিয়ে আফগানিস্তানের বোলারদের সামনে বুক উচিয়ে লড়াই শুরু করেন ম্যাকলিয়ড ও বেরিংটন। তৃতীয় উইকেটে ২০৮ রান যোগ করে দলকে জয়ে কাছাকাছি নিয়ে যান তারা। বেরিংটন ৬৭ রানে থামলেও অপরাজিত ১৫৭ রানের ইনিংস খেলে দলের জয় নিশ্চিত করেন ম্যাকলিয়ড। তার ১৪৬ বলের ইনিংসে ২৩টি চার ও ১টি ছক্কা ছিল।

এ ম্যাচে আফগানিস্তানের অধিনায়কত্ব করেন ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টির শীর্ষ বোলার রশিদ খান। এই ম্যাচ দিয়ে ওয়ানডেতে সর্বকনিষ্ট অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বরেকর্ড গড়েন তিনি। ১৯ বছর ১৬৫তম দিনের জাতীয় দলের হয়ে ওয়ানডেতে অধিনায়ক করতে নামেন রশিদ। এর আগে এই রেকর্ড নিজের দখলে রেখেছিলেন বাংলাদেশের রাজিন সালেহ। ২০০৪ সালে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির চতুর্থ ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ২০ বছর ২৯৭তম দিনে জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দিতে নামেন রাজিন।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

শ্রীলঙ্কা পৌঁছেছে বাংলাদেশ দল

শ্রীলঙ্কা পৌঁছেছে বাংলাদেশ দল

শহীদদের স্মরণে কাঁদলেন মাশরাফি

শহীদদের স্মরণে কাঁদলেন মাশরাফি

ঢাকা লিগে আশরাফুলের আবারও সেঞ্চুরি

ঢাকা লিগে আশরাফুলের আবারও সেঞ্চুরি

টুর্নামেন্ট জেতা প্রথম লক্ষ্য : মাহমুদউল্লাহ

টুর্নামেন্ট জেতা প্রথম লক্ষ্য : মাহমুদউল্লাহ