১১০ রানেই ‘প্যাকেট’ বাংলাদেশ

স্পোর্টস মেইল২৪ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:২১ পিএম, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
১১০ রানেই ‘প্যাকেট’ বাংলাদেশ

দুই টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে প্রথম ইনিংসে সফররত শ্রীলঙ্কার করা ২২২ রানের বিরীতে ব্যাট করতে নেমে ১১০ রানেই প্যাকেট হয়ে গেলে বাংলাদেশ। শ্রীলঙ্কার চেয়ে ১১২ রান পিছিয়ে থেকেই সব কয়টি উইকেট হারালো টাইগাররা। ফলে প্রথম ইনিংসেই ১১২ রানের লিড পেল শ্রীলঙ্কা।

দ্বিতীয় দিনের শুরুতে লিটনের বিদায়ের পর মিরাজকে ভালোভাবেই সঙ্গ দিচ্ছিলেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। দু’জনে গড়েন ৩৪ রানের জুটি। তবে এরপরই ঘটে ছন্দপতন।

ধনঞ্জয়ার ওভারে বোল্ড হয়ে সাজঘরে ফেরেন মাহমুদউল্লাহ। দুই বল ব্যবধানে সাব্বির শূন্য রানে আউট হলে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। চাপ আরও বেড়ে যায় ধনঞ্জয়ার ওভারে রাজ্জাক সাজঘরে ফিরলে।

আবারও ধনঞ্জয়ার, অফ স্টাম্পের বাইরের স্পিন করা বল ব্যাট-প্যাডের ফাঁক দিয়ে গিয়ে লাগে স্টাম্পে। দুই বল ব্যবধানে ফিরে যান সাব্বির। সাব্বিরের বিদায়ের পর শেষ হয়ে যায় বাংলাদেশের লিডের স্বপ্ন।

এর আগে প্রথম দিনে শ্রীলঙ্কাকে ২২২ রানে অলআউট করে দিনের শেষভাবে ৪ উইকেটে হারিয়ে ১৬৬ রানের পিছিয়ে থেকে দিন শেষ করে বাংলাদেশ।

টস জিতে আগে ব্যাটিং করে প্রথম ইনিংসে ২২২ রানে গুটিয়ে যায় সফরকারী শ্রীলঙ্কা। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেটে ৫৬ রানে প্রথম দিন শেষ করে বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৮ রান করেন কুসল মেন্ডিজ। এছাড়া ৫৬ রান করেন রোশেন সিলভা।বাংলাদেশের পক্ষে রাজ্জাক ও তাইজুল ৪টি করে এবং মোস্তাফিজ ২ উইকেট উইকেট শিকার করেন।

এছাড়া ব্যাট করতে নেমে ব্যর্থ হন তামিম ইকবাল ও মমিনুল হক। ওপেনার তামিম ইকবাল ইনিংসের প্রথম ওভারের তৃতীয় বলেই রিটার্ন ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফিরে যান। দলীয় মাত্র ৪ রানের মাথায় পতন ঘটে বাংলাদেশের প্রথম উইকেট।

এরপর ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই রানআউটে কাটা পড়েন চট্টগ্রাম টেস্টের নায়ক এবং টেস্টে বাংলাদেশের সেরা ব্যাটসম্যান মমিনুল হক।

কুশল পেরেরাকে মিড-অফে খেলে রান নিতে যান ইমরুল কায়েস। দৌড় দিলেও ব্যক্তিগত মাত্র ৪ রানেই থেমে যেতে হয় মমিনুলের।

তামিম-মমিনুলের পর ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। এ বিপর্যয় সামাল দিতে সতর্কভাবে খেলার প্রয়োজন হলেও ব্যর্থ হন ইমরুল কায়েস ও মুশফিকুর রহীম। বোকামির দণ্ডও দেন মুশফিক। সুরঙ্গা লাকমালের বল ছেড়ে দিতে গিয়ে বোল্ড হয়ে যানেএ টাইগার ব্যাটসম্যান। ব্যক্তিগত মাত্র ১ রানে মুশফিকের বিদায় বেলায় বাংলাদেশের স্কোর তখন ১২ রানে তিন উইকেট।

মুশফিকের বিদায়ের পর ধরে খেলার চেষ্টা করেন ইমরুল কায়েস এবং লিটন কুমার দাস। দু’জনে ৩৩ রানের জুটি গড়েন। তবে লঙ্কান স্পিনারদের চাপের মুখে টিকতে পারেননি ইমরুল কায়েস। দিলরুয়ান পেরেরার বলে এলবিডব্লিউ হয়ে যান ইমরুল।

ব্যক্তিগত ১৯ রানে ফিরে যান তিনি। ৫৫ বলে খেলা ইনিংসটি সাজানো ছিল ৩ বাউন্ডারিতে। ইমরুল আউট হওয়ার পর আরও দুই ওভার খেলা হলে শেষ হয়ে যায় প্রথম দিনের খেলা।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

রাজ্জাকের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং

রাজ্জাকের ক্যারিয়ার সেরা বোলিং

ফিরেই নিজের ঘুর্ণি দেখালেন রাজ্জাক

ফিরেই নিজের ঘুর্ণি দেখালেন রাজ্জাক

২২২ রানেই গুটিয়ে গেল শ্রীলঙ্কা

২২২ রানেই গুটিয়ে গেল শ্রীলঙ্কা

তরুণদের দৃষ্টি আকর্ষণে সাঙ্গাকারার পরামর্শ

তরুণদের দৃষ্টি আকর্ষণে সাঙ্গাকারার পরামর্শ