সুপার ওভারে পাকিস্তানকে হারিয়ে দিল জিম্বাবুয়ে

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ০৯:০৬ পিএম, ০৩ নভেম্বর ২০২০
সুপার ওভারে পাকিস্তানকে হারিয়ে দিল জিম্বাবুয়ে

তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ জিতে সিরিজ নিশ্চিত করেছিল স্বাগতিক পাকিস্তান। শেষ ম্যাচে লক্ষ্য ছিল সফররত জিম্বাবুয়েকে সপ্তমবারের মতো হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দেওয়ার। তবে সেটি আর হলো না, উল্টো সুপার ওভারে গড়ানো ম্যাচে হেরে গেছে পাকিস্তান।

মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) সিরিজের শেষ ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭৮ রানের সংগ্রহ গড়ে জিম্বাবুয়ে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৭৮ রানে থেমে যায় পাকস্তান। টাই হওয়ায় ম্যাচ গড়ায় সুপার ওভারে।

সুপার ওভারে দুর্দান্ত বল করেন জিম্বাবুয়ের তরুণ পেসার ব্লেসিং মুজারাবানি। মূল ম্যাচে ১০ ওভারে ৪৯ রান দিয়ে ৫ উইকেট শিকার করা এ তরুণ পেসার সুপার ওভারের প্রথম বলেই উইকেট তুলে নেন। দ্বিতীয় ও তৃতীয় বলে ১ রান করে দেওয়া মুজারাবানী চতুর্থ ওভারে শিকার করে দ্বিতীয় উইকেট। ফলে সুপার ওভারে জয় পেতে জিম্বাবুয়ের সামনে লক্ষ্য দাঁড়ায় মাত্র ৩ রান।

ব্যাট করতে নেমে ৩ বলেই ৫ রান তুলে দলের জয় নিশ্চিত করেন পাকিস্তানের পাঞ্জাবে জন্মগ্রহণকারী জিম্বাবুয়ের ক্রিকেটার সিকান্দর রাজা।

এদিকে এ জয়ে পাকিস্তানের কাছে সপ্তমবারের মতো হোয়াইটওয়াশের লজ্জা থেকে রক্ষা পেল জিম্বাবুয়ে। এর আগে তিন বা ততোধিক ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে জিম্বাবুয়েকে ছয়বার হোয়াইটওয়াশের লজ্জা দিয়েছে পাকিস্তান।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২২ রানেই টপ অর্ডারে তিন ব্যাটসম্যানকে হারায় জিম্বাবুয়ে। তার মাঝে দলীয় রানের খাতা খোলার আগেই ফিরে যান ওপেনার ব্রায়ান চারি। আর দলীয় দ্বিতীয় উইকেট হারায় দলীয় ৪ রানে।

তিন উইকেট হারানো পর দলের হাল ধরেন ব্রেন্ডন টেইলর ও শন উইলিয়ামস। ৬৮ বল মোকাবেলা করে ৫৬ রানে টেইলর আউট হলে ৮৪ রানের জুটি ভাঙে। টেইলর ফিরে গেলেও সেঞ্চুরি তুলে শেষ পর্যন্ত ১৩৫ বলে ১১৮ রানে অপরাজিত ছিলেন শন উইলিয়ামস। তার এ ইনিংসে ১৩টি চার ও একটি ছয়ের মার ছিল।

এছাড়া ওয়েসলে মাধভেরে ৩১ বলে ৩৩ এবং সিকান্দর রাজা ৩৬ বলে ৪৫ রান করেন। শন উইলিয়ামসের সেঞ্চুরির সাথে তাদের এসব ইনিংসে ২৭৮ রানের লড়াকু সংগ্রহ পায় জিম্বাবুয়ে।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে পাকিস্তানের দুই পেনারও ব্যার্থ হন। দলীয় ৬ রানেই ফাখর জামান (২) ও ইমাম-উল হক (৪) সাজঘরে ফিরেন। এছাড়া অন্য ব্যাটসম্যানরাও খুব একটা ভালো করতে পারেননি। তবে ব্যতিক্রম ছিলেন অধিনায়ঢক বাবর আজম।

তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে মাঠে নেমে ১২৫ বলে নিজের নামের পাশে যোগ করেন ১২৫ রান। তিনিও উইলিয়ামসের সমান ১৩টি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান। এছাড়া বাবর আজমের সেঞ্চুরির সাথে শেষ দিকে খুশদিল শাহ’র ৪৮ বলে ৩৩ এবং ওয়াহাব রিয়াজের ৫৬ বলে ৫২ রানে জয়ের স্বপ্ন দেখে পাকিস্তান।

তবে পাকিস্তানের স্বপ্নে ভাঙ্গন ধরান জিম্বাবুয়ের তরুণ পেসার মুজারাবানি। ১০ ওভার বল করে ৪৯ রান দিয়ে তিনি তুলে নেন ৫টি উইকেট। যার মাঝে ৪৯তম ওভারে পর পর দুই উইকেট নিয়ে পাকিস্তানকে শঙ্কায় পেলে দেন। শেষ ওভারে পাকিস্তানের জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৩ রান।

তবে মিস ফিল্ডিংয়ে কল্যাণে মোহাম্মদ মুসা (৯) এবং মোহাম্মদ হাসনাইন (৩) ১২ রান সংগ্রহ করলে ম্যাচ টাই হয়।

সিরিজের শেষ ম্যাচে ম্যাচ সেরা হয়েছেন জিম্বাবুয়ের তরুণ পেসার মুজারাবানি। তিনি মূল ম্যাচে পাঁচ উইকেট নেওয়া ছাড়াও সুপার ওভারে তুলে নিয়েছেন দুটি উইকেট।

[sportsmail24.com এর ওয়েবসাইট এখন sportsmail.com.bd ঠিকানাতেও ব্রাউজ করে পড়তে পারবেন। এছাড়া অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে স্পোর্টসমেইল২৪.কমের অ্যাপস থেকেও খেলাধুলার সকল নিউজ পড়তে পারবেন। ইনস্ট্রল করুন স্পোর্টসমেইল২৪.কমের অ্যাপস ]


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ জয় নিশ্চিত করলো পাকিস্তান

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ জয় নিশ্চিত করলো পাকিস্তান

টেইলরের সেঞ্চুরি ছাপিয়ে পাকিস্তানের জয় উল্লাস

টেইলরের সেঞ্চুরি ছাপিয়ে পাকিস্তানের জয় উল্লাস

জিম্বাবুয়েকে এবার আর টাকা দেবে না পাকিস্তান

জিম্বাবুয়েকে এবার আর টাকা দেবে না পাকিস্তান

জিম্বাবুয়ের জাতীয় দলে সৌদির ক্রিকেটার

জিম্বাবুয়ের জাতীয় দলে সৌদির ক্রিকেটার