মেলবোর্ন পিচ নিয়ে এবার সমালোচনায় আইসিসি

স্পোর্টস মেইল২৪ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৩৪ পিএম, ০৩ জানুয়ারি ২০১৮
মেলবোর্ন পিচ নিয়ে এবার সমালোচনায় আইসিসি

অ্যাশেজ সিরিজের চতুর্থ ম্যাচের মেলবোর্ন পিচ নিয়ে সমালোচনা করলো ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ড অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ ও জো রুটের সমালোচনার সাথে একই সুরে কথা বললো আইসিসি। এই প্রথমবারের মত অস্ট্রেলিয়ার পিচ নিয়ে রিপোর্ট করা হয়েছে। প্রথমবারের মত সমালোচনার মুখে পড়লো অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট।

মেলবোর্নে বক্সিং-ডে টেস্টের আগে পুরো সিরিজেই কোনঠাসা ছিল ইংল্যান্ড। মেলবোর্ন টেস্টে জয়ের স্বপ্নও দেখছিল ইংলিশরা। কিন্তু শেষ দিনে অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্মিথের দুর্দান্ত সেঞ্চুরিতে ম্যাচটি ড্র করতে পারে স্বাগতিকরা। গেল ২০ বছরে বক্সিং-ডের টেস্ট ইতিহাসে এটি ছিল দ্বিতীয় ড্র। ড্র’র স্বাদ নিয়ে ম্যাচ শেষে পিচ নিয়ে কঠোর সমালোচনা করেন স্মিথ ও রুট।

স্মিথ বলেছিলেন, ‘পাঁচদিনেও পিচের কোন পরিবর্তন হয়নি। আমার মনে হয় আমরা যদি আগামী কয়েকদিনও এখানে খেলতে থাকি, তারপরও পিচে কোন পরিবর্তন আসবে না। এমন পিচ টেস্ট খেলার জন্য মোটেও উপযোগি নয়।’

ইংল্যান্ডের রুটের ভাষ্য ছিল, ‘এটি বক্সিং-ডে টেস্ট খেলার জন্য নয়। এমন পিচে কোন ফলাফল আশা করা বা ফলাফলের জন্য লড়াই করা বোকামি। জয়ের জন্য আমরা আমাদের সামর্থ্যের সবটুকু উজার করে দিয়েছি। কিন্তু এমন পিচে ফলাফল পাওয়া কঠিন।’

স্মিথ-রুটের সাথে আরও অনেকেই পিচ নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন। এবার সেই সমালোচনার তালিকায় যুক্ত হলো আইসিসি নিজেই। মেলবোর্নে পাঁচ দিনে উইকেট পড়েছে মাত্র ২৪টি। ব্যাটসম্যানদের দাপট দেখানো ম্যাচে রান হয়েছে ১০৮১।

মেলবোর্নের পিচ নিয়ে আইসিসি’র কাছে রিপোর্ট করেন ম্যাচ রেফারি রঞ্জন মাধুগালে। এর পরিপ্রেক্ষিতে আইসিসির গর্ভনিং বডি জানায়, ‘এটি খুবই নিম্নমানের পিচ ছিল। এমন পিচে টেস্ট ম্যাচ খেললে ভালো কিছু আশা করা যায় না।’

নিজের রিপোর্টে মাধুগালে বলেছিলেন, ‘এই পিচে বাউন্স কম হয়েছে। বোলাররা সুইং-এর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে। এ ছাড়া বোলারদের পেসের গতিও কম লক্ষ্য করা গেছে। পাঁচদিনেও পিচের কোন পরিবর্তন হয়নি। এটি বোলারদের কোন সহায়তা করতে পারে না। তাই ব্যাটসম্যানদের সাথে বোলারদের লড়াই হবার কোন উপায়ও দেখা যায়নি।’

আইসিসি’র নতুন নিয়মে পিচ নিয়ে শাস্তির বিধান রয়েছে। তবে এ যাত্রায় বেঁচে গেল মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড। কারণ নিয়ম চালু হবার দু’দিন আগে মেলবোর্নের পিচ নিয়ে রিপোর্ট দেয়া হয়। নয়তো খেলোয়াড়দের মত নতুন নিয়মে ডিমেরিট পয়েন্ট পেতো মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ড। নতুন নিয়মে কোন ভেন্যু পাঁচ ডিমেরিট পয়েন্ট পেলেই ১২ মাসের জন্য নিষিদ্ধ হবে। এছাড়া ১০ ডিমেরিট পয়েন্ট পেলে দু’বছরের জন্য নিষিদ্ধ হবে।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহি অফিসার জেমস সান্ডারল্যান্ড বলেন, ‘বক্সিং-ডে টেস্টে মেলবোর্নের পিচের এমন আচরণ খুবই হতাশার। আইসিসি পরামর্শ নিয়ে আমরা বোর্ড থেকে পিচ নিয়ে নতুনভাবে কাজ করবো। যাতে ভবিষ্যতে এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে।’

সাব্বিরের শাস্তি থেকে সবাইকে শিক্ষা নিতে হবে : মাশরাফি

বছরের প্রথম দিনেই বড় শাস্তি পেয়েছেন জাতীয় দলের হার্ড হিটার ব্যাটসম্যান সাব্বির রহমান। দেশের ক্রীড়াঙ্গনে এ মুহূর্তে এটি সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা। তবে যা হয়ে গেছে তা নিয়ে আটকে থাকতে চান না ওয়ানডে দলনেতা মাশরাফি। তিনি বলেন, ‌‌‘সাব্বিরের শাস্তি থেকে সবাই শিক্ষা নেবে, যাতে একই ভুল বারবার না হয়।’

মঙ্গলবার বিসিবি একাডেমি মাঠে সংবাদমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন মাশরাফি। তিনি বলেন, ‘বিসিবির অধীনে আমরা সবাই। এটা মেনে নেওয়া আমাদের সবার দায়িত্ব। আমাদের সবাই অনুসরণ করে। তরুণ খেলোয়াড় যারা উঠে আসছে, অনূর্ধ্ব-১৫, ১৭, ১৯ যারা খেলছে, তারাও আমাদের অনুসরণ করে। শুধু মাঠে নয়, মাঠের বাইরের কাজগুলো ঠিকঠাক করাও আমাদের দায়িত্ব।’

সাব্বিরের প্রসঙ্গ টেনে মাশরাফি বলেন, ‘সামনে যেন আমরা এমন ভুল না করি। শুধু সাব্বিরের যে শাস্তি হয়েছে, এটা আর কারও যেন না হয়, সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে ‘

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের কাজ ঠিকঠাক অনুশীলন করা ও ভালো খেলা। যেহেতু আমাদের সবাই অনুসরণ করে, আমাদের নিশ্চিত করতে হবে, মাঠের বাইরের কাজগুলো যেন ঠিকঠাকভাবে করি। এটা শুধু খেলা নয়, জীবনের অনেক বড় অংশ।’

উল্লেখ্য, জাতীয় লিগের শেষ রাউন্ডে এক কিশোর দর্শককে মারধর, ম্যাচ অফিশিয়ালদের সঙ্গে অশোভন আচরণ ও ম্যাচ চলার সময় নিয়মবহির্ভূত মুঠোফোন ব্যবহার করায় সাব্বিরকে বড় শাস্তির সুপারিশ করেছে বিসিবি। শাস্তির মধ্যে রয়েছে- বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ, ২০ লাখ টাকা জরিমানা এবং আগামী ছয় মাস ঘরোয়া ক্রিকেটে নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকবে সাব্বির।


শেয়ার করুন :