পুরনো স্মৃতিই বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস

স্পোর্টস মেইল২৪ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৬:২৫ এএম, ১০ মার্চ ২০১৮
পুরনো স্মৃতিই বাংলাদেশের আত্মবিশ্বাস

নিদাহাস ট্রফিতে ভারতের কাছে হার দিয়ে যাত্রা শুরু করেছে বাংলাদেশ। এবার নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে শনিবার বাংলাদেশ মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিক শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে।

ঢাকার মাটিতে এ শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ হেরেছে বাংলাদেশ। তবে লঙ্কারদের বিপক্ষে পুরনো স্মৃতি সাহস যোগাচ্ছে বাংলাদেশকে। কলম্বোর এই প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে গত এপ্রিলে দুই ম্যাচ সিরিজের শেষ ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছিল বাংলাদেশ। ঐ স্মৃতি থেকে উজ্জীবিত হয়ে শনিবার মাঠে নামছে টাইগাররা। টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়।

ভারতের বিপক্ষে শুভ সূচনা করার লক্ষ্য নিয়ে নিদাহাস ট্রফিতে খেলতে নামে বাংলাদেশ। টস হেরে প্রথমে ব্যাট হাতে নামতে হয় টাইগারদের। ব্যাটসম্যানরা নিজেদের মেলে ধরতে না পারায় ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৩৯ রানের বেশি করতে পারেনি বাংলাদেশ। তিন নম্বরে নামা লিটন দাস সর্বোচ্চ ৩৪ রান করেন। এছাড়া ছয় নম্বরে নেমে ৩০ রানের ছোট্ট, তবে কার্যকরী ইনিংস খেলেন সাব্বির রহমান। শেষ দিকে সাব্বিরের ঐ স্কোরে সম্মানজনক পুঁজি পায় টাইগাররা।

বাংলাদেশের ছুঁড়ে দেয়া সম্মানজনক ১৪০ রান ৮ বল হাতে রেখেই স্পর্শ করে ফেলে ভারত। ওপেনার শিখর ধাওয়ানের ৫৫ রান ভারতের জয়কে সহজ করে। প্রতিপক্ষের সহজ জয়ের পেছনে মূল কারণ ছিল বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতা।

নিজেদের ইনিংসে ৫৫টি ডেলিভারিতে কোন রানই নিতে পারেনি তামিম-সৌম্য-মুশফিকুর-মাহমুদুল্লাহরা। আর এখানেই ম্যাচ হারের প্রধান কারণ বলে জানান বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ। বলেন, ‘মাঝের ওভারগুলোতে আমাদের ভালো ব্যাটিং করতে হবে। মাঝের ওভারগুলোতে বাউন্ডারি এমনকি সিঙ্গেলসও আদায় করতে পারছি না আমরা।’

তবে একটি জয় বাংলাদেশ দলের চিত্র পাল্টে দিবে বলে জানান মাহমুদুল্লাহ। যত ভুলই হোক না কেন দল একটি জয়ের অপেক্ষায় রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা শুধু একটি মাত্র জয়ের অপেক্ষায় আছি। একটি জয় পেলেই অন্য এক বাংলাদেশকে দেখা যাবে।’

শনিবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষেই সেই কাঙ্খিত জয় আসলে মন্দ হয় না। এমন জয় প্রত্যাশা করতেই পারে টাইগাররা। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়কে সঙ্গী করেই এ মাঠে নামবে বাংলাদেশ।

শ্রীলঙ্কার মাটিতে তাদেরই বিপক্ষে ২০১৭ সালের এপ্রিলে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছিল বাংলাদেশ। দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ছিল এ ভেন্যুতেই। ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজার শেষ টি-টোয়েন্টিও ছিল সেটি। ঐ ম্যাচে উজ্জীবিত বাংলাদেশ ৪৫ রানে হারিয়েছিল শ্রীলঙ্কাকে। জয়ের ব্যবধান যেমনই হোক না কেন, ঐ ম্যাচে দেখা গিয়েছিল অন্য এক বাংলাদেশকে। ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং তিন বিভাগেই প্রতিপক্ষকে ধরাশায়ী করে মাশরাফির নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ।

প্রায় এক বছর আগের সুখস্মৃতি বাংলাদেশের লক্ষ্য পূরণে বড় উপাদান হিসেবেই কাজ করতে পারে। এ জন্য ব্যাটসম্যানদের ব্যাটে বড় বড় স্কোর, বোলারদের ডেলিভারিতে প্রতিপক্ষের উইকেট শিকারের আনন্দের উপলক্ষ্য তৈরি করতে হবে খেলোয়াড়দের। যেমনটা ছিল মাশরাফির বিদায়ী ম্যাচে।

বাংলাদেশ দল
মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, মুশফিকুর রহিম, সাব্বির রহমান, মোস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, তাসকিন আহমেদ, লিটন কুমার দাস, আবু হায়হার রনি, আবু জায়েদ রাহী, আরিফুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ, নুরুল হাসান সোহান ও নাজমুল ইসলাম অপু।

শ্রীলঙ্কা দল
দিনেশ চান্ডিমাল (অধিনায়ক), উপুল থারাঙ্গা, দানুশকা গুনাথিলাকা, কুসল মেন্ডিজ, দাসুন শানাকা, কুসল পেরেরা, থিসারা পেরেরা, জীবন মেন্ডিজ, সুরাঙ্গা লাকমাল, ইসুরু উদানা, আকিলা ধনঞ্জয়া, আমিলা আপনসো, নুয়ান প্রদীপ, দুশমন্ত চামিরা ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

বাংলাদেশকে সহজেই হারালো ভারত

বাংলাদেশকে সহজেই হারালো ভারত

হারের দায় ব্যাটসম্যানদের

হারের দায় ব্যাটসম্যানদের

স্ত্রীর লিখিত অভিযোগ, গ্রেফতার হতে পারেন শামি

স্ত্রীর লিখিত অভিযোগ, গ্রেফতার হতে পারেন শামি

এপ্রিলেই কোচ, আর দেরি নয়

এপ্রিলেই কোচ, আর দেরি নয়