স্মিথ-লাবুশেনকে নিয়ে মধুর সমস্যায় অস্ট্রেলিয়া

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ১০:০৮ পিএম, ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৯
স্মিথ-লাবুশেনকে নিয়ে মধুর সমস্যায় অস্ট্রেলিয়া

অ্যাশেজ সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে মাথায় বলের আঘাত পাওয়া থেকে সুস্থ হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক স্টিভেন স্মিথ। তার অনুপস্থিতিতে দলে সুযোগ পেয়েই নিজের জাত চেনান মার্নাস লাবুশেন। এ অবস্থায় চতুর্থ টেস্টের সেরা একাদশ নির্বাচনে মধুর সমস্যায় পড়েছেন অস্ট্রেলিয়া নির্বাচকরা।

তিন ইনিংস ব্যাট করার সুযোগ পেয়েই সবগুলোতেই হাফসেঞ্চুরি করেছেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান মার্নাস লাবুশেন। এরপর চতুর্থ টেস্টে স্মিথের ফেরা অন্যদিকে লাবুশেনের দুর্দান্ত ফর্মে অ্যাশেজ সিরিজে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চতুর্থ টেস্টের আগে একাদশ নির্বাচন নিয়ে মহাচিন্তায় পড়েছে অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাচক ট্রেভর হন্স এমনটাই জানিয়েছেন।

হন্স বলেন, ‘স্মিথ হলো প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বি। দলে তার সুযোগ পাওয়া নিয়ে কোন সমস্যাই নয়। কিন্তু স্মিথের পরিবর্তে সুযোগ পেয়েই চমক দেখিয়েছেন লাবুশেন। লর্ডসের পর লিডসেও বড় স্কোর করেছে সে। লর্ডসে অবশ্যই দুর্ভাগ্যজনক সুযোগ ছিল তার। সে প্রতিটি ক্ষেত্রেই ভালো করেছেন এবং তাকে দেয়া প্রতিটি সুযোগের সর্বাধিক ব্যবহার করেছেন।’

লর্ডসে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ইংল্যান্ডের পেসার জোফরা আর্চারের দ্রুতগতির এক ডেলিভারিতে মাথার পেছনে ঘাড়ে বলের আঘাত পান স্মিথ। সাথে-সাথেই মাঠ ছাড়েন তিনি। তখন তার নামের পাশে ৮০ রান লেখা ছিলো। পরে ব্যাট হাতে নেমে তিনটি চার মেরে ৯২ রান তুলে টানা তৃতীয় সেঞ্চুরির অপেক্ষায় ছিলেন ইনজুরি আক্রান্ত স্টিভেন স্মিথ

বার্মিংহামে সিরিজের প্রথম টেস্টের দুই ইনিংসেই ১৪৪ ও ১৪২ রান করেন স্মিথ। তবে দ্বিতীয় ম্যাচে দুর্ভাগ্যজনকভাবে ৯২ রানেই থেমে যেতে হয় স্মিথকে।

মাথায় বলের আঘাত পেয়ে মাঠ ছেড়ে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করেছিলেন স্মিথ। কিন্তু দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট হাতে নামতেই পারলেন না স্মিথ। ফলে দ্বিতীয় ইনিংসে আইসিসির নতুন নিয়মনুযায়ী ‘কংকাসন সাব’ বা দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে খেলতে নামেন লাবুশেন।

আইসিসির পুরনো নিয়ম ছিল, দ্বাদশ খেলোয়াড় হিসেবে মাঠে নামলে শুধুমাত্র ফিল্ডিং’ই করা যাবে। কিন্তু গত মাসের শুরু থেকে আইসিসি এই নিয়ম পরিবর্তন করে। নতুন নিয়মে রাখা হয়, দ্বাদশ খেলোয়াড় ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং সবকিছুই করতে পারবেন। তাই আইসিসির নতুন নিয়মের প্রথম ‘কংকাসন সাব’ হয়ে যান লাবুশেন। ব্যাট হাতে দ্বিতীয় ইনিংসে খেলতে নেমেই ম্যাচ বাঁচালেন তিনি। স্মিথের পরিবর্তে চার নম্বরে ব্যাট হাতে নেমেই ৫৯ রানের ইনিংস খেলে ঐ ম্যাচ ড্র করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন লাবুশেন।

স্মিথের শারীরিক অবস্থার কথা চিন্তা করে সিরিজের তৃতীয় টেস্টে তাকে খেলায়নি অস্ট্রেলিয়ার টিম ম্যানেজমেন্ট। তাই অটোমেটিক চয়েজ হিসেবে লিডস টেস্টে একাদশে খেলার সুযোগ পান। সুযোগ পেয়ে ৭৪ ও ৮০ রান করেন তিনি। অ্যাশেজে তিন ইনিংস ব্যাট করার সুযোগ পেয়ে ৭১ গড়ে ২১৩ রান করে একাদশে নিজের জায়গা পাকাপোক্ত করে রাখেন লাবুশানে।

স্মিথের ফিরে আসা ও লাবুশেনের দুর্দান্ত ফর্মে এখন বড় চিন্তার ভাঁজ অস্ট্রেলিয়ার কপালে। তবে স্মিথ-লাবুশানেকে একাদশে রাখতে একটা সমাধানের চেষ্টা করছে অস্ট্রেলিয়া।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

এলিট ক্লাবে মার্নাস লাবুশেন

এলিট ক্লাবে মার্নাস লাবুশেন

ফিরছেন স্মিথ, শিরোপা পুনরুদ্ধারের আশা পাইনের

ফিরছেন স্মিথ, শিরোপা পুনরুদ্ধারের আশা পাইনের

ল্যাঙ্গারের তুরুপের তাস স্মিথ

ল্যাঙ্গারের তুরুপের তাস স্মিথ

স্টোকসের হেলমেট ভাঙলেন হ্যাজলউড

স্টোকসের হেলমেট ভাঙলেন হ্যাজলউড