ষষ্ঠবার ব্যালন ডি’অর জিতে মেসির রেকর্ড

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ০৭:৪১ পিএম, ০২ ডিসেম্বর ২০১৯
ষষ্ঠবার ব্যালন ডি’অর জিতে মেসির রেকর্ড

রোনালদো ও ভার্জিল ফন ডাইককে পেছনে ফেলে ষষ্ঠবারের মত ব্যালন ডি’অর জিতে নিলেন লিওনেল মেসি। ১৯৫৬ সালে বর্ষসেরা ফুটবলারের খেতাব ব্যালন ডি'অর চালুর পর থেকে ষষ্ঠবারের মত এ শিরোপা জয়ে রেকর্ড গড়েলেন বার্সেলোনা তারকা লিওনেল মেসি। এতদিন পর্তুগিজ তারকা রোনালদোর সঙ্গে পাঁচবার এ পুরস্কার জিতে যৌথভাবে শীর্ষে ছিলেন মেসি।

সোমবার রাতে প্যারিসে জমকালো আয়োজনে রোনালদো-ডাইককে টপকে ৩২ বছর বয়সী মেসির হাতে উঠে সেরার পুরস্কার। এর আগে ২০০৯, ২০১০, ২০১১, ২০১২ ও ২০১৫ সালে এ ট্রফি উঁচিয়ে ধরেছিলেন আর্জেন্টিনার এ ফুটবল জাদুকর।

গত সেপ্টেম্বরে ফিফা বর্ষসেরা ‘দ্য বেস্ট মেনস প্লেয়ার’ও নির্বাচিত হয়েছিলেন লিওনেল মেসি। সেখানেও ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বেশি ষষ্ঠবারের মতো ফিফার খেতাব জিতেছেন।

আর্জেন্টিনার জার্সিতে হতাশ করলেও বরাবরের মতো গত ক্লাব মৌসুম দারুণ কেটেছিল মেসির। বার্সেলোনাকে লা লিগা জেতাতে রাখেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা। কাতালান ক্লাবটির চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমি-ফাইনালে ও কোপা দেল রের ফাইনালে ওঠাতেও বড় অবদান ছিল আর্জেন্টাইন তারকার।
sportsmail24
ক্লাব পর্যায়ে ব্যক্তিগত নৈপুণ্যে আরও বেশি উজ্জ্বল ছিলেন বার্সেলোনা অধিনায়ক। লা লিগায় সর্বোচ্চ ৩৬ গোল করে একই সঙ্গে জিতে নেন পিচিচি ট্রফি ও ইউরোপিয়ান গোল্ডেন শু। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে করেন সর্বোচ্চ ১২ গোল। ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে গেল মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৫৮ ম্যাচ খেলে ৫৪ গোল করেন মেসি। সেসবের স্বীকৃতি এ ব্যালন ডি’অর।

বিশ্বজুড়ে সাংবাদিকদের ভোটে রেকর্ড ষষ্ঠবারের মতো এ পুরস্কার জিতে এক প্রতিক্রিয়ায় মেসি বলেন, যেসব সাংবাদিকরা আমাকে ভোট দিয়েছেন এবং চেয়েছেন যে আমি এ পুরস্কার জিতি, তাদের সবাইকে আমি ধন্যবাদ দিতে চাই। আমার সতীর্থদের অনেক অনেক ধন্যবাদ যারা সত্যি এ পুরস্কার জয়ে অনেক বেশি অবদান রেখেছে। এটা অবিশ্বাস্য, সবাইকে অনেক অনেক ধন্যবাদ।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

মেসির শেষ মুহূর্তের গোলে শীর্ষে বার্সেলোনা

মেসির শেষ মুহূর্তের গোলে শীর্ষে বার্সেলোনা

প্রথম ম্যাচেই হেরে গেল বাংলাদেশ

প্রথম ম্যাচেই হেরে গেল বাংলাদেশ

ইউরোর এক মিলিয়ন টিকিট বিক্রি করবে উয়েফা

ইউরোর এক মিলিয়ন টিকিট বিক্রি করবে উয়েফা

ড্রয়ের পর যেমন হলো ইউরো ২০২০

ড্রয়ের পর যেমন হলো ইউরো ২০২০