গেইলের সেঞ্চুরি, বিদায় নিলো খুলনা

স্পোর্টস মেইল২৪ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৫২ এএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০১৭
গেইলের সেঞ্চুরি, বিদায় নিলো খুলনা

বিপিএলের পুরো আসরে তেমন একটা ভালো করতে না পারলেও এলিমিনেটর ম্যাচে সেঞ্চুরি করলে ক্যারিবিয় দানব ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল। আর তার এ সেঞ্চুরিতে ২৮ বল হাতে রেখেই ৮ উইকেটের বিশাল জয় পেয়েছে রংপুর রাইডার্স। রংপুরের এ জয়ে বিপিএল থেকে এবারের মতো বিদায় নিলো খুলনা টাইটান্স।

শুক্রবার দিনের প্রথম ও আসরের এলিমিনেটর ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্ধন্ত নেয় রংপুরের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ফলে ব্যাট হাতে সাবধানী শুরু খুলনার দুই ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত ও অস্ট্রেলিয়ার মাইকেল ক্লিঞ্জারের। ৩ ওভার শেষে মাত্র ১৪ রান যোগ করেন তারা। এরমধ্যে প্রথম ও তৃতীয় ওভার বল করে মাত্র ৪ রান দেন রংপুরের মাশরাফি।

তবে চতুর্থ ওভারের শেষ বলে এই দু’ওপেনারকে বিচ্ছিন্ন করেন ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে ৮ রান দেয়া রংপুরের অফ-স্পিনার সোহাগ গাজী। ৩টি চারে ১৬ বলে ১৫ রান করা শান্তকে নিজের বলেই ক্যাচ নেন গাজী। এরপর ক্রিজে গিয়ে মারমুখী মেজাজেই শুরু করেছিলেন তরুণ আফিফ হোসেন। কিন্তু সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে পারেননি তিনি। ১টি করে চার ও ছক্কায় ৯ বলে ১১ রান করে শ্রীলংকার লাসিথ মালিঙ্গার প্রথম শিকার হন আফিফ।

আফিফের বিদায়ে উইকেটে যাবার সুযোগ হয় খুলনার অধিনায়ক মাহমুদুুল্লাহ রিয়াদের। মালিঙ্গার বিপক্ষে মুখোমুখি হওয়া প্রথম দু’বলে ছক্কা ও চার হাকাঁন রিয়াদ। এতে আত্মবিশ্বাস বেড়ে যায় খুলনার অধিনায়কের। তাই পরের ওভারেও মারমুখী মেজাজেই ছিলেন তিনি। পরের ওভারে রংপুরের বাঁ-হাতি স্পিনার নাজমুল ইসলামের দ্বিতীয় বলে ছক্কা ও তৃতীয় ডেলিভারিতে বাউন্ডারি মারেন রিয়াদ। তাই অধিনায়কের ব্যাটে চড়ে বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখতে শুরু করে খুলনা। কিন্তু ছক্কা ও চার হজমের পরের ডেলিভারিতে রিয়াদকে বিদায় দেন নাজমুল ইসলাম। ২টি করে চার ও ছক্কায় মাত্র ৬ বলে ২০ রান করেন রিয়াদ।

দলীয় ৫৬ রানে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে রিয়াদের বিদায়ের পর দলের হাল ধরেন ক্লিঞ্জার ও আরিফুল হক। দু’জনে উইকেট বাঁচিয়ে খেলার পরিকল্পনা করেন তারা। তাই ৭ ওভার শেষে যেখানে ৩ উইকেটে রান ছিল ৫৭ রান, সেখানে ১১ ওভার শেষে ৩ উইকেটে রান হয় ৭৬। ওপেনার হিসেবে নেমে ১১ ওভার ক্রিজে থেকে ২২ বল মোকাবেলা করে মাত্র ১৫ রান করতে সক্ষম হন ক্লিঞ্জার।

তবে ১২তম ওভারে থেমে যায় তার ধীর গতির ইনিংস। নামের পাশে ২১ রান রেখে রংপুরের ইংল্যান্ডের খেলোয়াড় রবি বোপারার ইর্য়রকার এক ডেলিভারিতে বোল্ড হয়ে ফিরেন ক্লিঞ্জার। দলীয় ৮২ রানে ক্লিনজারের বিদায়ের পর আরিফুলের ৩০ বলে ২৯, ওয়েস্ট ইন্ডিজের দুই খেলোয়াড় নিকোলাস পুরানের ২২ বলে ২৮ ও কালোর্স ব্র্যাথওয়েটের মাত্র ৯ বলে অপরাজিত ২৫ রানের সুবাদে ২০ ওভারে ৬ উইকেটে ১৬৭ রানের লড়াকু স্কোর পায় খুলনা টাইটান্স। ব্র্যাথওয়েটের ইনিংসে ৩টি চার ও ১টি ছক্কা ছিল। পুরান ২টি চার ও ১টি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান। রংপুরের মালিঙ্গা ২টি, গাজী-নাজমুল-রুবেল-বোপারা ১টি করে উইকেট নেন।

১৬৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে গেইলের হার না মানা ১২৬ রানের দানবীয় ইনিংসে উপর ভর করে ১৫.২ ওভারে ১৭১ রান করে জয় তুলে নেয় রংপুর রাইডার্স।

ক্রিস গেইল আজ প্রথম থেকে মারমুখী ছিলেন। ছয় আর চারের ফুলঝুড়ি ছোটাতে থাকেন তিনি। তার সামনে খুলনার বোলারদের অসহায় লাগছিল। ৪৫ বলে তুলে নেনে বিপিএল ক্যারিয়ারের চতুর্থ সেঞ্চুরি। আর এবারের আসরের প্রথম সেঞ্চুরি। এবারের আসরের এখন পর্যন্ত আর কোন ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরির দেখা পাননি।

গেইলের হার না মানা ১২৬ রানের ইনিংসটি খেলতে খরচ করেন ৫১টি বল। ইনিংসটিতে ছিল ৬টি বাউন্ডারি ও ১৪টি ওভারবাউন্ডারির মার! গেইলকে ভালোই সঙ্গ দিয়েছেন মোহাম্মদ মিথুন। তিনি করেন ৩৬ বলে অপরাজিত ৩০ রান করেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর :
খুলনা টাইটান্স : ১৬৭/৬, ২০ ওভার (আরিফুল ২৯, পুরান ২৮, বার্থওয়েট ২৫*, মালিঙ্গা ২/৪৯)।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

ছক্কা বৃষ্টি ঝড়ালো গেইল

ছক্কা বৃষ্টি ঝড়ালো গেইল

বিপিএলের শেষ চার দল চূড়ান্ত

বিপিএলের শেষ চার দল চূড়ান্ত

খুলনাকে বিদায় দিয়ে শেষ চারে রংপুর

খুলনাকে বিদায় দিয়ে শেষ চারে রংপুর

বাসেলকে ফেদেরার অভিনন্দন

বাসেলকে ফেদেরার অভিনন্দন