চতুর্থ দিন শেষে ১১৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ

স্পোর্টস মেইল২৪ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:০৭ এএম, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮
চতুর্থ দিন শেষে ১১৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ

চট্টগ্রামে সিরিজের প্রথম টেস্টে প্রথম ইনিংসে শ্রীলঙ্কা ২০০ রান লিড নেওয়ার চতুর্থ দিন শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে ১১৯ রানে পিছিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। ৭১৩ রান করে ইনিংস ঘোষণা করায় ২০০ রান পিছিয়ে থেকে ব্যাট করতে নেমে কায়েস-তাতিমের পর বিদায় নিয়েছেন মুশফিকুর রহিমও।

২০০ রান লিড নিয়ে বাংলাদেশকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানালে ২৬ ওভার ৫ বল মোকাবেলা করে ৮১ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। তবে এরি মধ্যে মূল্যবান তিনটি উইকেট তুলে নিয়েছে শ্রীলঙ্কার বোলাররা।

তামিম ইকবালের সাথে ওপেনিং করতে নামা ইমরুল কায়েস আউট হয়েছেন মাত্র ১৯ রান করে। এছাড়া তার একটু পরই লক্ষ্মণ সান্দাকানের ডেলিভারি বুঝতে না পেরে উইকেটরক্ষক ডিকভেলার হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন তামিম ইকবাল। তামিম ৬২ বল মোকাবেলা আউট হওয়ার করেন ৪১ রান।

তার কিছুক্ষণ পর হেরাথের ঘূর্ণিতে কাবু হয়ে ক্যাচ আউট হয়ে ঘরে ফেরেন মুশফিক। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট নেমে দিনের শেষ ভাগে মাত্র ২৬.৫ ওভারে ৮১ রানেই ৩ উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে ওপেনার কুশল মেন্ডিসের ১৯৬ ও ধনানঞ্জয়া ডি সিলভার ১৭৩ রানের পর রোশন সিলভার অপরাজিত ৮৭ রানের সুবাদে ১৩৮ ওভারে মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে ৫০৪ রান তুলে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করেছিল শ্রীলঙ্কা। ফলে তৃতীয় দিন শেষে ৭ উইকেট হাতে নিয়ে মাত্র ৯ রানে পিছিয়ে ছিল লঙ্কানরা।

সেঞ্চুরির স্বপ্ন নিয়ে চতুর্থ দিন শুরু করেন রোশন। প্রথম সেশনেই নিজেদের দ্বিতীয় টেস্টেই প্রথম সেঞ্চুরি তুলেও নেন। এরপর ব্যক্তিগত ১০৯ রানে থেমে যান তিনি। অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমালের সাথে চতুর্থ উইকেটে ১৩৫ রান যোগ করেছিলেন রোশন। তার ২৩০ বলের ইনিংসে ৬টি চার ও ১টি ছক্কা ছিল।

এরপর শ্রীলঙ্কার রানকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে থাকেন চান্ডিমাল ও উইকেটরক্ষক নিরোশান ডিকবেলা। রান তোলার কাজটা অনায়াসে করেছেন তারা। তাই ৩৭ রান নিয়ে শুরু করে টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৬তম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে তিন অংকের কাছে পৌছে যান চান্ডিমাল। কিন্তু চান্ডিমালের লক্ষ্য পূরণ হয়নি। বাংলাদেশের বাঁ-হাতি স্পিনার তাইজুল ইসলামের দুর্দান্ত এক ডেলিভারিতে বোল্ড হন চান্ডিমাল। এর আগেই ৩টি চারে ১৮৫ বল মোকাবেলায় নিজের ইনিংস সাজান চান্ডিমাল। পঞ্চম উইকেটে ডিকবেলার সাথে ৬৩ রান যোগ করতে সমর্থ হন তিনি।

চান্ডিমালের মত হাফ-সেঞ্চুরির স্বাদ নিয়ে মাঠ ছেড়েছেন ডিকবেলাও। টেস্ট ক্যারিয়ারের অস্টম হাফ-সেঞ্চুরি পাওয়া ইনিংসে ৬১ বলে ৬২ রানে থামেন তিনি। মিরাজের তৃতীয় শিকার হবার আগে ৯টি চারও মেরেছেন ডিকেবলা।

এরপর ছোট ছোট দু’টি ইনিংসে শ্রীলংকার রানকে ৭শ’ পার করিয়ে দেন দুই টেল-এন্ডার দিলরুয়ান পেরেরা ও বর্ষীয়ান রঙ্গনা হেরাথ। পেরেরা ৩২ ও হেরাথ ২৪ রান করেন। পেরেরাকে ফিরিয়ে অভিষেক টেস্টে প্রথম উইকেট শিকারের স্বাদ নিয়েছেন বাঁ-হাতি স্পিনার সানজামুল ইসলাম।

২০০তম ওভারের তৃতীয় বলে হেরাথকে বিদায় দেন তাইজুল। এরপরই নিজেদের ইনিংসের সমাপ্তি নিজেরাই টানেন শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক চান্ডিমাল। ইনিংস ঘোষণার সময় লঙ্কানদের রান ছিল ৯ উইকেটে ৭১৩ রান। যা চট্টগ্রামের যেকোন ভেন্যুতে টেস্ট প্লেয়িং যেকোন দলের সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ। তবে বাংলাদেশের বিপক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ দলীয় সংগ্রহ।

এছাড়া এ নিয়ে নিজেদের টেস্ট ইনিংসে ষষ্ঠবারের মত ৭শ বা তার চেয়ে বেশি রান করলো শ্রীলঙ্কা। এই ইনিংসে বাংলাদেশের পক্ষে বাংলাদেশের পক্ষে তাইজুল ইসলাম ৪টি, মেহেদি হাসান মিরাজ ৩টি ও মোস্তাফিজুর রহমান-সানজামুল ইসলাম ১টি করে উইকেট নেন।


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

১২ বছর আগের কথা মনে করিয়ে দিলেন মুশফিক

১২ বছর আগের কথা মনে করিয়ে দিলেন মুশফিক

এমন ‘স্বাদ’ গ্রহণে সানজামুল প্রঞ্চম

এমন ‘স্বাদ’ গ্রহণে সানজামুল প্রঞ্চম

তামিমের পর মমিনুলের প্রশংসায় হেরাথ

তামিমের পর মমিনুলের প্রশংসায় হেরাথ

হেনড্রেন-গিলেস্পি হতে পারলেন না মেন্ডিস, তবে শ্রীলঙ্কার প্রথম

হেনড্রেন-গিলেস্পি হতে পারলেন না মেন্ডিস, তবে শ্রীলঙ্কার প্রথম