পরিশ্রম ছিল, ছিল মনের সাথে লড়াই : সাকিব

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ১১:০৮ পিএম, ১৮ জুলাই ২০২১
পরিশ্রম ছিল, ছিল মনের সাথে লড়াই : সাকিব

নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে দেশের জার্সি গায়ে খেলা ৭টি ওয়ানডে ম্যাচে ফিফটি ছিল মাত্র একটি। এক ম্যাচে শূন্যসহ মোট রান ছিল ১৫১। বিশ্বকাপে ব্যাট হাতে ঝড় তোলা সেই সাকিব আল হাসানকে যেন খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। অবশেষে দলের প্রয়োজনে কথা বললো সাকিবের ব্যাট। অপরাজিত ৯৬ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে দলকে জয় উপহার দিলেন ওয়ানডে ক্রিকেটের বিশ্বসেরা টাইগার অলরাউন্ডার।

নিজেকে খুঁজে পেতে শারীরিক পরিশ্রম যেমন করেছেন সাকিব আল হাসান, তেমনি মনের সাথেও করতে হয়েছে যুদ্ধ। রোববার (১৮ জুলাই) জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ জয়ের পর তেমনটাই জানালেন তিনি। বলেন, ‘পরিশ্রম তো করতেই হয়, সাথে মেন্টাল মাইন্ড সেটটা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

সাকিব বলেন, ‘পরিশ্রম তো করতেই হয়, মেন্টাল মাইন্ড সেটটাই অনেক বেশি ইম্পর্ট্যান্ট। আমার মনে হয়, আমি অনেক বেশি চিন্তা করছিলাম। যেটা হয়তো এই ম্যাচের আগে অনেকটা চেঞ্জ করছি। কিছু কিছু জিনিস আছে যেগুলো আমাকে অনেক বেশি হেল্প করছে, এ ম্যাচে ভালো করার জন্য।’

দলের টপঅর্ডারদের ব্যর্থতায় ম্যাচ যখন হারের দ্বারপ্রান্তে, তখনই ব্যাট হাতে দায়িত্বশীল ইনিংস খেলে দলকে জয় উপহার দেন সাকিব। নিজের এমন ফর্ম এবং দলের জন্য ফোকাস ধরে রাখতে চান তিনি। বলেন, ‘চেষ্টা করবো যেন এ ফোকাসটা ধরে রাখতে পারি। আসলে খুব বেশি টেকনিক্যালি সমস্যা হয় না। নরমালি মেন্টালি সমস্যা হয়। মেন্টাল গেমটা যদি আমি নিজের সাথে নিজে জিততে পারি তাহলে নিয়মিত রান করতে পারবো।’

১৪৫ রানে ৬ উইকেট হারানোর পরও দলের জয় নিশ্চিত করার বিষয়ে সাকিব বলেন, ‘তখন আফিফের সাথে ব্যাট করছিলাম, একটাই কথা বলছিলাম, আমরা যদি ৪৫ ওভার পর্যন্ত ব্যাট করতে পারি তাহলে কোথায় আছি দেখতে পাব। টার্গেট ছিল খেলাটা যতটা ক্লোজ করতে পারি। কখনও চিন্তা করি নাই যে, ৬০-৭০ রান লাগে বা তাড়াতাড়ি রান করতে হবে। কারণ, শেষ দিকে দুই-তিন ওভারে ১৫-২০ রান করা সম্ভব, এখনকার ওয়ানডে ক্রিকেটে।’

নিজের পারফর্ম্যান্সের চেয়ে দলের জয়ে অবদান রাখায় বেশি খুশি সাকিব আল হাসান। বলেন, ‘খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল, দলের জয়ের জন্য বড় কন্ট্রিবিউশন ছিল, সেই দিক থেকে ভেরি হ্যাপি। সবসময় চেষ্টা করি যেন টিমের জন্য যতটা সম্ভব কন্ট্রিবিউশন করতে পারি। সো, দু’দিনই করতে পেরে আমি খুব খুশি।’

দল জয় পেলেও জিম্বাবুয়ের মতো দলের বিপক্ষে ২৪১ রান তাড়া করতে গিয়ে বেশ কষ্ট করতে হয়েছে বাংলাদেশর। যেখানে প্রথম ম্যাচে আরও বড় সংগ্রহ ছিল টাইগারদের। তবে দ্বিতীয় ম্যাচের উইকেট ব্যাটারদের অনুকূলে ছিল না বলে জানান সাকিব।

তিনি বলেন, ‘উইকেট আজকে একটু ডিফারেন্ট ছিল। বল ব্যাটে আসছিল না। আমাকে শটস খেলতে হতো রান করার জন্য। সো সেই জায়গাটাতে একটু অ্যাডজাস্ট করতে হইছে। তবে আমি হ্যাপি যে, যে ধরনের অ্যাডজাস্টমেন্ট করতে হয়েছিল তা করতে পেরেছি।’

দলের ব্যাটসম্যানরা সাকিবকে বড় পার্টনারশিপ গড়তে সঙ্গ দিতে ব্যর্থ হলেও শেষ দিকে সাইফউদ্দিন বেশ ভালো খেলা শেষ করেছেন। ফলে সাকিবও তাকে ক্রেডিট দিতে ভুলেননি।

সাকিব বলেন, ‘উইকেটে একটু সময় নিয়েছি, কারণ রেগুলার উইকেট পড়তেছিল। আমিও খুব বেশি কিছু একটা করতেও পারতেছিলাম না। ক্রেডিট দিতে হয় সাইফউদ্দিনকেও, ও আসলে যেভাবে খেলা শেষ করতে পেরেছে আমার সাথে।’

স্পোর্টসমেইল২৪/পিপিআর/আরএস

[sportsmail24.com এখন sportsmail.com.bd ঠিকানাতেও। খেলাধুলার ভিডিও-ছবি এবং  সর্বশেষ সংবাদ পড়তে ব্রাউজ করুন যেকোন ঠিকানায়। এছাড়া অ্যান্ড্রয়েড মোবাইলে ইনস্ট্রল করে নিতে আমাদের অ্যাপস ]


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

অভিজ্ঞ সাকিবে পরাস্ত জিম্বাবুয়ে, সিরিজ বাংলাদেশের

অভিজ্ঞ সাকিবে পরাস্ত জিম্বাবুয়ে, সিরিজ বাংলাদেশের

বাংলাদেশের পক্ষে যত হিট উইকেট

বাংলাদেশের পক্ষে যত হিট উইকেট

সিরিজ রক্ষার ম্যাচে আড়াইশও করতে পারলো না জিম্বাবুয়ে

সিরিজ রক্ষার ম্যাচে আড়াইশও করতে পারলো না জিম্বাবুয়ে

বিশ্বকাপে ভারতের জন্য বড় সমস্যা হবে ক্লান্তি

বিশ্বকাপে ভারতের জন্য বড় সমস্যা হবে ক্লান্তি