ম্যাক্সওয়েল-ক্যারির জোড়া সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার অসাধ্য সাধন

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ০৮:৫৬ এএম, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২০
ম্যাক্সওয়েল-ক্যারির জোড়া সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার অসাধ্য সাধন

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে গ্লেন ম্যক্সওয়েল ও অ্যালেক্স ক্যারির জোড়া সেঞ্চুরিতে স্বাগতিক ইংল্যান্ডকে ৩ উইকেটে হারিয়েছে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া। ২-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতে আইসিসি সুপার লিগের যাত্রাটা দারুণভাবে শুরু করলো অস্ট্রেলিয়া।

বুধবার (১৬ সেপ্টেম্বর) টসে জিতে ব্যাট করতে নেমে জনি বেয়ারস্টোর ১১২, স্যাম বিলিংসের ৫৭ ও ক্রিস ওকসের অপরাজিত ৫৩ রানের সুবাদে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ৩০২ রান তুলে ইংল্যান্ড। জয়ের জন্য ৩০৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ১০৮ ও অ্যালেক্স ক্যারির ১০৬ রানের ওপর ভর করে ৩ উইকেটের জয় পায় সফরকারীরা।

ব্যাট করতে নেমে শুরুটা একেবারেই ভালো করতে পারেনি স্বাগতিকরা। ইনিংসের প্রথম দুই বলে ওপেনার জেসন রয় ও জো রুটকে সাজঘরে ফেরান মিচেল স্টার্ক। তাতে করে শুরুতেই বিপাকে পড়তে হয় ইংল্যান্ডকে। রুট, রয়ের বিদায়ের পর আরেক ওপেনার জনি বেয়ারস্টোকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ে তুলেন অধিনায়ক ইয়ান মরগান।

তবে তাদের সেই প্রতিরোধ খুব বেশি লম্বা হতে দেননি লেগস্পিনার অ্যাডাম জাম্পা। দলীয় ৬৭ রানের সময় ২৩ রান করা মরগানকে ফেরান জাম্পা। মরগান ফিরলে ভাঙে বেয়ারস্টো-মরগানের ৬৭ রানের জুটি। মরগানের বিদায়ের পর থিতু হতে পারেননি উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জস বাটলারও। মাত্র ৮ রান করে জাম্পার বলে ফিঞ্চের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তিনি।

তারপর অবশ্য বেয়ারস্টোর সঙ্গী স্যাম বিলিংস। দুই জনের অনবদ্য জুটিতে বড় সংগ্রহের পথে এগোতে থাকে ইংল্যান্ড। ৫৭ রান করে বিলিংস ফিরে গেলে ভাঙে বেয়ারস্টো-বিলিংসের ১১৪ রানের জুটি। বিলিংসের বিদায়ের পর ক্যারিয়ারের দশম সেঞ্চুরি তুলে নিয়ে সাজঘরে ফিরেন বেয়ারস্টো। ১২৬ বলে ১২ চার ও ২ ছয়ের সাহায্যে ১১২ রান করেন তিনি।

শেষ দিকে ৩৯ বলে ক্রিস ওকসের ঝড়ো ফিফটিতে ৩০০ পেরোয় স্বাগতিকরা। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ৩০২ রান তুলে ইংল্যান্ড। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ৩টি উইকেট নেন মিচেল মার্শ আর ২টি করে উইকেট নেন স্টার্ক, জাম্পা ও ম্যাক্সওয়েল।

জয়ের জন্য ৩০৩ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে একেবারে ছন্নছড়া শুরু করে সফরকারীরা। ডেভিড ওয়ার্নার, অ্যারন ফিঞ্চ, মার্নাস লাবুশানে, মার্কাস স্টয়নিস ও মিচেল মার্শরা ছিলেন আসা যাওয়ার মিছিলে। প্রথম সারির পাঁচ ব্যাটসম্যানের কেউ থিতু হতে না পারায় মাত্র ৭৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা।

তাদের বিদায়ে অস্ট্রেলিয়ার পরাজয়ের ঘন্টা যেন মাথা চাড়া দিয়ে উঠে। ১০০ কিংবা ১৫০ রানের মাঝে অস্ট্রেলিয়া যখন অলআউট হওয়ার শঙ্কায় তখনই ত্রাতা হয়ে আসেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স ক্যারি ও অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। দুজনের অনবদ্য জুটিতে লড়াই করে এবং জয় তুলে নেয় অস্ট্রেলিয়া।

১০৮ রান করে ম্যাক্সওয়েল ও ১০৬ রান করে ক্যারি বিদায় নিলে আবারও হারের শঙ্কা জাগে অস্ট্রেলিয়ার। তাদের বিদায়ের পর শেষ ওভারে জয়ের জন্য ১০ রান দরকার হয় অজিদের। তবে সেটা ভালোভাবে সামলিয়ে দলের জয় ও সিরিজ নিশ্চিত করেছেন মিচেল স্টার্ক। ২ বল বাকি থাকতেই দলকে জয়ের বন্দরে নিয়ে যান স্টার্ক ও কামিন্স। আইসিসি সুপার লিগে নিজেদের প্রথম সিরিজেই জয় পেল অজিরা।

[sportsmail24.com এর ওয়েবসাইট এখন sportsmail.com.bd ঠিকানাতেও ব্রাউজ করে পড়তে পারবেন। এছাড়া অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে স্পোর্টসমেইল২৪.কমের অ্যাপস থেকেও খেলাধুলার সকল নিউজ পড়তে পারবেন। ইনস্ট্রল করুন স্পোর্টসমেইল২৪.কমের অ্যাপস ]


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

মুম্বাই শিবিরে শচীন পুত্র অর্জুন টেন্ডুলকার!

মুম্বাই শিবিরে শচীন পুত্র অর্জুন টেন্ডুলকার!

বাংলাদেশের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন শিথিল করবে না শ্রীলঙ্কা

বাংলাদেশের ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন শিথিল করবে না শ্রীলঙ্কা

সিরিজ আয়োজনে ইংল্যান্ডের সহায়তা চায় পাকিস্তান

সিরিজ আয়োজনে ইংল্যান্ডের সহায়তা চায় পাকিস্তান

চাকরি হারাচ্ছেন ইসিবির ৬২ কর্মী

চাকরি হারাচ্ছেন ইসিবির ৬২ কর্মী