হতাশা কেটেছে সোহানের, সুযোগ দেখছেন ক্রিকেটে ফেরার

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ০৮:৩৩ পিএম, ২৯ জুলাই ২০২০
হতাশা কেটেছে সোহানের, সুযোগ দেখছেন ক্রিকেটে ফেরার

চলতি মাসের ১৯ তারিখে থেকে একক অনুশীলন শুরু করেছিল বাংলাদেশের ৯ ক্রিকেটার। যদিও সংখ্যাটা পরবর্তীতে বেশি হয়েছিল। একক অনুশীলন ধীরে ধীরে ক্রিকেটারদের বেশ ভালভাবেই পুনরায় শুরুর পথ তৈরি করবে বলে মনে করেন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান নুরুল হাসান সোহান।

কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ থামিয়ে দিয়েছে গোটা দেশের ক্রিকেট কার্যক্রমকে। এখন সীমিত পরিসরে একক অনুশীলনের মাধ্যমে নতুন করে শুরু হয়েছে ক্রিকেটীয় কার্যক্রম। দেশের ৫টি ভেন্যুতে নিরাপদে এই অনুশীলনের ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বিসিবি আয়োজিত এই ব্যক্তিগত অনুশীলনে অংশ নেওয়া দেশের ১৪ ক্রিকেটারের একজন হচ্ছেন সোহান।

সোহান বলেন, ‘এমন চমৎকার একটি উদ্যোগ গ্রহণের জন্য আমি বিসিবিকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এটি আমাদের জন্য দারুণ কার্যকর হয়েছে। গত চার মাস ধরে ঘরে থাকতে থাকতে আমরা হতাশ হয়ে পড়েছিলাম। এটি আমাদের জন্য সহজ ছিল না। আমরা নিজেদের দক্ষতা ও ফিটনেস নিয়ে শঙ্কিত হয়ে পড়েছিলাম। আশা করছি দ্রুত ক্রিকেটে ফিরতে পারব।’

প্রাথমিকভাবে সাতদিনের জন্য এই উদ্যোগ নেওয়া হলেও খেলোয়াড়দের অনুরোধে আরও দুই দিনের জন্য বাড়ানো হয়েছিল একক অনুশীলনের মেয়াদ। তবে বাড়তি এই দুই দিনের মেয়াদ শুধু মিরপুরের শের-এ বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামেই বাড়ানো হয়েছিল। আসন্ন ঈদের পর অনুশীলনের এই মেয়াদ আরও বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে বিসিবি। ওই সময় আরও অধিক সংখ্যক ক্রিকেটার অনুশীলনে অংশগ্রহণের আগ্রহ প্রকাশ করেছে। একই সঙ্গে সম্ভাব্য অক্টোবরে অনুষ্ঠেয় শ্রীলঙ্কার সঙ্গে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজের প্রস্তুতির জন্য কন্ডিশনিং ক্যাম্প শুরুরও পরিকল্পনা করছে বোর্ড।

ঈদের পর ৮ আগস্ট থেকে পুনরায় শুরু হতে পারে অনুশীলন কার্যক্রম। কোভিড-১৯ এর সংক্রমণকালে বিসিবির অনুশীলন আয়োজনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে অংশগ্রহণ করেছেন সর্বমোট ১৪জন ক্রিকেটার। আউটডোরে অনুশীলনে খেলোয়াড়দের আগ্রহের কারণে ১৯ জুলাই থেকে ব্যক্তিগত এই অনুশীলনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছিল বিসিবি। প্রথমে ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট ও খুলনার চার ভেন্যুতে এই অনুশীলনের ব্যবস্থ্যা করেছিল বোর্ড। পরে এই তালিকায় যুক্ত করা হয় রাজশাহীকে। সেখানে অনুশীলন শুরু করেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, শফিউল ইসলাম, ইমরুল কায়েস, তাসকিন আহমেদ ও মেহেদি হাসান রানা তাদের অনুশীলনের জন্য বেছে নেন শের-এ বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামকে। পরে তাদের সঙ্গী হন এনামুল হক বিজয়। মেহেদী হাসান মিরাজ, মেহেদী হাসান ও নুরুল হাসান সোহান অনুশীলন করেছেন খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে। নাসুম আহমেদ ও সৈয়দ খালেদ আহমেদ অনুশীলন করেছেন সিলেটের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। আর চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে অনুশীলন করেছেন নাঈম হাসান।

৩৫ খেলোয়াড়ের সঙ্গে ভার্চুয়াল আলোচনার পর ফিটনেসের কথা ভেবে একক এই অনুশীলনের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল বোর্ড। তবে বোলিং করার সুযোগ পায়নি বোলাররা। শুধু রানিং ও জিমের মধ্যেই সন্তুষ্ঠ থাকতে হয়েছে তাদেরকে। অবশ্য ইনডোরে অনুশীলনের সুযোগ পেয়েছিল ব্যাটসম্যানরা।

[sportsmail24.com এর ওয়েবসাইট এখন sportsmail.com.bd ঠিকানাতেও ব্রাউজ করে পড়তে পারবেন। এছাড়া অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে স্পোর্টসমেইল২৪.কমের অ্যাপস থেকেও খেলাধুলার সকল নিউজ পড়তে পারবেন। ইনস্ট্রল করুন স্পোর্টসমেইল২৪.কমের অ্যাপস ]


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে মহাচিন্তায় আইসিসি

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ নিয়ে মহাচিন্তায় আইসিসি

৯ দিনের অনুশীলন শেষে ১০ দিনের বিরতি

৯ দিনের অনুশীলন শেষে ১০ দিনের বিরতি

বৃষ্টিতেও হার এড়াতে পারলো না উইন্ডিজ, ইংল্যান্ডের সিরিজ জয়

বৃষ্টিতেও হার এড়াতে পারলো না উইন্ডিজ, ইংল্যান্ডের সিরিজ জয়

আইসিসির ওপর ক্ষোভ ঝাড়লেন আথারটন

আইসিসির ওপর ক্ষোভ ঝাড়লেন আথারটন