শেষ মুহূর্তের পেনাল্টিতে পিএসজেকে বাঁচালো এমবাপ্পে

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ০৩:০০ পিএম, ২৯ নভেম্বর ২০২৩
শেষ মুহূর্তের পেনাল্টিতে পিএসজেকে বাঁচালো এমবাপ্পে

ম্যাচের ৯৮ মিনিটে কিলিয়ান এমবাপ্পের পেনাল্টিতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিউক্যাসল ইউনাইটেডের সাথে ১-১ গোলে ড্র করে নকআউট পর্ব নিশ্চিতের পথে অনেকটাই এগিয়ে গেছে পিএসজি। তবে এ ড্রয়ে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব নিউক্যাসল গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায়ের শঙ্কায় পড়েছে।

গত মাসে পিসেজর বিপক্ষে সেন্ট জেমস পার্কে নিউক্যাসল ৪-১ গোলে জয়ী হয়েছিল। আলেক্সান্দার ইসাকের ২৫ মিনিটের গোলে গ্রুপ-এফ’র ম্যাচে এগিয়ে গিয়ে আরো একবার পিসজিকে পরাস্ত করার ইঙ্গিত দিচ্ছিল নিউক্যাসল। কিন্তু ম্যাচে ফিরে আসতে মরিয়া পিএসজি শেষ পর্যন্ত ইনজুরি টাইমে ভাগ্যের জোরে রক্ষা পায়।

টিনো লিভ্রামেন্টোর হ্যান্ডবলে ভিএআর পেনাল্টির সিদ্ধান্ত দেয়। এমবাপ্পে স্পট কিক থেকে কোন ভুল করেননি। এখন পর্যন্ত ১০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে থেকে পরের রাউন্ড নিশ্চিত করা বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের থেকে তিন পয়েন্ট পিছিয়ে এই মুহূর্তে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে পিএসজি। গতকাল আরেক ম্যাচে গ্রুপের তলানির দল এসি মিলানকে ৩-১ গোলে উড়িয়ে দিয়ে দারুন এক জয় তুলে নিয়েছে ডর্টমুন্ড।

গ্রুপের শেষ শ্যাচে ডর্টমুন্ডকে হারাতে পারলেই নক আউট পর্বে উঠবে ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা। অন্যদিকে ঘরের মাঠে মিলানকে শুধু হারালেই হবে না, পিএসজির হারের অপেক্ষায় থাকতে হবে নিউক্যাসলের।

নিউক্যাসল ম্যানেজার এডি হাউ বলেছেন, “আমি মনে করি পেনাল্টির সিদ্ধান্তটি সঠিক হয়নি। এটাই আমাদের জন্য অত্যন্ত হতাশার। কারন এমন অবস্থায় ম্যাচে ফিরে আসার মত সময় আমাদের হাতে ছিলনা। কিন্তু এখানে আসলে বলার কিছুই নেই।”

এ ম্যাচে পরাজিত হলে নিউক্যাসলের বিদায় নিশ্চিত হয়ে যেত। যে কারণে অন্তত টিকে থাকার স্বপ্নে কিছুটা স্বস্তি পেতেই পারে প্রিমিয়ার লিগের ক্লাবটি। এদিকে, গ্রুপের পাঁচ ম্যাচে তৃতীয় পরাজয় এড়িয়ে পিএসজি আপাতত কাতারী মালিকানা শুরুর পর প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ষোলর আগে বিদায়ের শঙ্কা থেকে মুক্তি পেয়েছে।

পিএসজি বস লুইস এনরিকে বলেছেন, “আমাদের জেতা উচিৎ ছিল, এতে কোন সন্দেহ নেই। আমি মনে করি এটা আমাদের জন্য একটি পরিপূর্ণ পারফরমেন্স। আমরা নিউক্যাসলের থেকে ভাল খেলেছি। কিন্তু এটাই ফুটবল। ভিএআর সিদ্ধান্ত নিয়ে আমি কিছু বলতে চাইনা। আমি শুধুমাত্র দলের পারফলমেন্সের উন্নতির বিষয়ে কথা বলতে পারি।”

পার্ক ডি প্রিন্সেসে সফরকারীরা প্রায়ই স্বাগতিকদের উপর আগ্রাসী হয়ে উঠছিল। পিএসজিও কম যায়নি। ৯ মিনিটে রানডাল কোলো মুয়ানির সহায়তায় আচরাফ হাকিমি ডান দিক থেকে এমবাপ্পের দিকে বল বাড়িয়ে দেন। তবে এমবাপ্পের ব্যাক হিলের আক্রমণ রুখে দেন নিউক্যাসল গোলরক্ষক নিক পোপ।

ম্যাচের ১২তম মিনিটে মিগুয়েল আলমিরনের ক্রসে ইসাকের শট বারের উপর দিয়ে চলে যায়। ২৪তম মিনিটে অব্যশ আর ভুল করেননি ইসাক। এক গোলে এগিয়ে থাকা উজ্জীবিত নিউক্যাসল এরপর বারবার প্রমান দিয়েছে গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন ম্যানচেস্টার সিটির পাশাপাশি কেন তাদের রক্ষণভাগকেও ইংল্যান্ডে সেরার তকমা দেওয়া হয়েছিল।

নিউক্যাসলের ডিফেন্স একে একে এমবাপ্পে, ওসমানে ডেম্বেলে ও কোলো মুয়ানিকে প্রতিহত করে পিএসজির হতাশা বাড়িয়েছে। প্রথমার্ধের স্টপেজ টাইমে ডেম্বেলেকে হতাশ করেন পোপ। ৬৬ মিনিটে এমবাপ্পের এ্যাসিস্টে বদলি খেলোয়াড় ব্র্যাডলি বারকোলার শট রুখে দেন পোপ।

এরপর এন্থনি গর্ডনের বিপক্ষে হাকিমিকে ফাউলের অপরাধে পিএসজি পেনাল্টির জোড়ালো আবেদন জানিয়েছিল। তবে ভিএআর তা আমলে নেয়নি। কিছুক্ষণ পর টিনএজার লুইস মিলের হ্যান্ডবলও এড়িয়ে যান রেফারি সিমন মারসিনিয়াক।

৮৭তম মিনিটে এমবাপ্পের শট সেভ করেন পোপ। তবে ইনজুরি টাইমে আর শেষ রক্ষা হয়নি। লিভ্রামেন্টোর হ্যান্ডবলে ভিএআর এবার পেনাল্টি উপহার দেওয়া পিএসজিকে। এমবাপ্পে স্পট কিক থেকে গোল করে পিএসজির গুরুত্বপূর্ণ এক পয়েন্ট নিশ্চিত করেন।


শেয়ার করুন :