সেঞ্চুরিতে দ্বিতীয় দিনের নায়ক স্মিথ

স্পোর্টসমেইল২৪ স্পোর্টসমেইল২৪ প্রকাশিত: ০৬:৪৮ পিএম, ০৮ জানুয়ারি ২০২১
সেঞ্চুরিতে দ্বিতীয় দিনের নায়ক স্মিথ

ভারতের বিপক্ষে অবশেষে রানের দেখা পেলেন স্টিভেন স্মিথ। চলমান সিরিজে আগের দুই টেস্টের চার ইনিংসে সব মিলিয়ে ১০ রান করা স্মিথ তৃতীয় ও সিডনি টেস্টে সেঞ্চুরি করেছেন। স্মিথের সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার পুঁজি দাঁড়ায় ৩৩৮ রান। ১৩১ রান করেছেন স্মিথ। জবাবে দিন শেষে ২ উইকেটে ৯৬ রান করেছে ভারত। ৮ উইকেট হাতে নিয়ে এখনো ২৪২ রানে পিছিয়ে টিম ইন্ডিয়া।

ম্যাচের প্রথম দিন বৃহস্পতিবার (৭ জানুয়ারি) সময় ভাগাভাগি করে নেয় বৃষ্টি ও অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানরা। প্রায় চার ঘণ্টা বৃষ্টির কারণে মাত্র ৫৫ ওভার খেলা হয়। ২ উইকেট ১৬৬ রান তুলে প্রথম দিন শেষ করে অস্ট্রেলিয়া। জোড়া হাফ-সেঞ্চুরি করেন অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা অস্ট্রেলিয়ার উইল পুকোভস্কি ও মার্নাস লাবুশেন। পুকোভস্কি ৬২ রানে ফিরলেও ৬৭ রানে অপরাজিত থেকে যান লাবুশেন। তার সাথে ৩১ রানে অপরাজিত ছিলেন স্মিথ।

লাবুশেন-স্মিথের জুটিতে তৃতীয় দিন শুক্রবার দলীয় ২শ রানের কোটা অতিক্রম করে অস্ট্রেলিয়া। নব্বইতে পৌঁছে টেস্ট ক্যারিয়ারের পঞ্চম সেঞ্চুরির স্বপ্ন দেখছিলেন লাবুশেন। তবে ব্যক্তিগত ৯১ রানে তাকে থামিয়ে দেন ভারতের স্পিনার রবীন্দ্র জাদেজা।

১৯৬ বলে ১১টি চারে নিজের দায়িত্বশীল ইনিংসটি সাজান লাবুশেন। তৃতীয় উইকেটে লাবুশেন-স্মিথ দলকে উপহার দেন ১০০ রান। দু’জনে ২২০ বল খেলেন। পুকোভস্কির সাথে দ্বিতীয় উইকেটে ১০০ রানের জুটি গড়েছিলেন লাবুশেন।

দলীয় ২০৬ রানে তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে লাবুশেনের বিদায়ের পর অস্ট্রেলিয়াকে চেপে ধরার চেষ্টা করে ভারতের বোলাররা। জাদেজা-বুমরাহ’র বোলিংয়ের সামনে বেশিক্ষণ ক্রিজে টিকতে পারেননি অস্ট্রেলিয়ার মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। ২৭৮ রানে পৌঁছাতে আরও ৪ উইকেট হারায় অস্ট্রেলিয়া।

ম্যাথু ওয়েডকে ১৩ ও প্যাট কামিন্সকে খালি হাতে আউট করেন জাদেজা। আর রানের খাতা খোলার আগেই ক্যামেরুন গ্রিনকে ও অধিনায়ক টিম পাইনকে ১ রানে বিদায় দেন বুমরাহ। ৪৬ রানে ৪ উইকেট পতনে তিনশর আগে গুটিয়ে যাওয়ার শঙ্কায় পড়ে অস্ট্রেলিয়া। তবে সেটি হতে দেননি স্মিথ ও পেসার মিচেল স্টার্ক।

অষ্টম উইকেটে ৪৬ বলে ৩২ রান করেন তারা। এর মধ্যে ২৪ রানই ছিল স্টার্কের। দ্রুত রান তুলে ভারতীয় বোলারদের চাপে ফেলার ছক কষেন স্টার্ক। তাতে সফল হন তিনি। এ জুটিতেই টেস্ট ক্যারিয়ারের ২৭তম সেঞ্চুরি স্বাদ নেন স্মিথ। ইনিংসের ৯৮তম ওভারের শেষ বলে ভারতের বিপক্ষে অষ্টম সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন স্মিথ।

দলীয় ৩১০ রানে স্টার্ককে নিজের দ্বিতীয় শিকার বানিয়ে ভারতকে গুরুত্বপূর্ণ ব্রেক-থ্রু এনে দেন অভিষেক ম্যাচ খেলতে নামা নবদীপ সাইনি। ২টি চার ও ১টি ছক্কায় ৩০ বলে ২৪ রান করেন স্টার্ক। দশম নম্বরে নামা নাথান লিঁওকে শূন্য হাতে বিদায় দিয়ে অস্ট্রেলিয়ার নবম উইকেটের পতন ঘটান জাদেজা। তখন অস্ট্রেলিয়ার রান ৩১৫। এ অবস্থাতেও আরও বহু দূর যাওয়ার স্বপ্ন দেখছিল অস্ট্রেলিয়া। কারণ, অন্যপ্রান্তে তখনও টিকে ছিলেন স্মিথ।

শেষ উইকেট থাকায় দ্রুত রান তোলার চেষ্টা করেন স্মিথ। শেষ ব্যাটস্যান জশ হ্যাজেলউডকে খুব বেশি স্ট্রাইক না দিয়ে ১১ বলে ২১ রান তুলেন স্মিথ। তবে ১০৬তম ওভারের চতুর্থ বলে দু’রান নিতে গিয়ে স্কয়ার লেগ থেকে জাদেজার সরাসরি থ্রোতে রান আউট হন স্মিথ। ফলে ৩৩৮ রানে থেমে যায় অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস।

স্মিথ থামেন ১৩১ রানে। তার ২২৬ বলের ইনিংসে ১৬টি চার মারেন স্মিথ। ১ রানে অপরাজিত ছিলেন হ্যাজেলউড। ভারতের জাদেজা ৬২ রানে ৪টি, বুমরাহ-সাইনি ২টি করে উইকেট নেন।

চা-বিরতির আগে অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস শেষ হওয়ায় ব্যাট হাতে নেমে ভারতকে বড় সূচনা এনে দেন প্রথমবারের মতো এ সিরিজে খেলতে নামা রোহিত শর্মা ও তরুণ ওপেনার শুভমান গিল। সতর্কতার সাথে খেলে স্কোর বোর্ডে ভালো রান জড়ো করছিলেন রোহিত-শুভমান। ১৯ ওভারে দলীয় ৫০ রান পায় ভারত। এ সময় রোহিত ৭১ বলে ২৪ ও ৭৪ বলে ৩১ রানে অপরাজিত ছিলেন শুভমান।

দলকে ৫০ রানে পৌঁছে দিয়েও জুটিকে আরও বড় করার পথে ছিলেন রোহিত-শুভমান। তবে ২৭তম ওভারের শেষ বলে দলীয় ৭০ রানে রোহিতকে থামিয়ে দেন অস্ট্রেলিয়ার পেসার হ্যাজেলউড। ৭৭ বলে ৩টি চার ও ১টি ছক্কায় ২৬ রান করেন হিটম্যান।

সতীর্থকে হারালেও টেস্ট ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ম্যাচেই প্রথম হাফ-সেঞ্চুরির দেখা পান ২১ বছর বয়সী শুভমান। ১০০ বলে হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন তিনি। তবে অর্ধশতক পূরণ করার পরের বলেই বিদায় ঘটে শুভমানের। গালিতে গ্রিনকে ক্যাচ দিয়ে কামিন্সের বলে আউট হন তিনি। ১০১ বলে ৮টি চারে নিজের ইনিংস সাজান গত ম্যাচে অভিষেক হওয়া শুভমান।

৮৫ রানে দ্বিতীয় উইকেট পতনের পর জুটি বাঁধেন চেতেশ্বর পূজারা ও অধিনায়ক আজিঙ্কা রাহানে। উইকেট বাঁচিয়ে রাখাই প্রধান লক্ষ্য ছিল তাদের। তাই রানের প্রতি কোন আগ্রহ দেখাননি তারা। এতে দিনের শেষ ৭৭ বলে মাত্র ১১ রান তুলে অবিচ্ছিন্ন থেকে প্যাভিলিয়নে ফিরেন পূজারা ও রাহানে।

পূজারা ৫৩ বলে ৯ ও রাহানে ৪০ বলে ৫ রানে অপরাজিত আছেন। অস্ট্রেলিয়ার হ্যাজেলউড-কামিন্স ১টি করে উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর (টস-অস্ট্রেলিয়া)
অস্ট্রেলিয়া : ৩৩৮/১০, ১০৫.৪ ওভার (স্মিথ ১৩১, লাবুশানে ৯১, পুকোভস্কি ৬২, জাদেজা ৪/৬২)
ভারত : ৯৬/২, ৪৫ ওভার (শুভমান ৫০, রোহিত ২৬, কামিন্স ১/১৯)।

[sportsmail24.com এর ওয়েবসাইট এখন sportsmail.com.bd ঠিকানাতেও ব্রাউজ করে পড়তে পারবেন। এছাড়া অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনে স্পোর্টসমেইল২৪.কমের অ্যাপস থেকেও খেলাধুলার সকল নিউজ পড়তে পারবেন। ইনস্ট্রল করুন স্পোর্টসমেইল২৪.কমের অ্যাপস ]


শেয়ার করুন :


আরও পড়ুন

স্মিথের সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার ৩৩৮, জাদেজার ৪ উইকেট

স্মিথের সেঞ্চুরিতে অস্ট্রেলিয়ার ৩৩৮, জাদেজার ৪ উইকেট

ডিসেম্বরে বাংলাদেশেই বসছে অনূর্ধ্ব-১৯ নারী বিশ্বকাপ

ডিসেম্বরে বাংলাদেশেই বসছে অনূর্ধ্ব-১৯ নারী বিশ্বকাপ

৯ নম্বরেই বাংলাদেশ, ভুল শুধরে নিল আইসিসি

৯ নম্বরেই বাংলাদেশ, ভুল শুধরে নিল আইসিসি

প্রথমবার পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে ইংল্যান্ডের মেয়েরা

প্রথমবার পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে ইংল্যান্ডের মেয়েরা